এমন কিছু অলিখিত সামাজিক নিয়ম,যেগুলো আমাদের সবার জানা উচিত

আমরা মানুষরা সামাজিক প্রাণী,আমরা সবাই সামাজিক ভাবে দলবদ্ধ ভাবে বসাবাস করি।সামাজিক ভাবে চলতে গেলে আমাদের অনেক নিয়ম কানুন মেনে চলতে হয়।এই নিয়ম কানুন গুলোর কিছু কিছু লিখিত আবার এমন কিছু সামাজিক নিয়মাবলী রয়েছে কিন্তু সেই নিয়মগুল কোথাও ( বই অথবা রাষ্ট্রের সংবিধান) ও লেখা নেই।আজকে আমরা এই আর্টিকেল এ এমন কিছু নিয়ম বা আচার-আচারন সম্পর্কে জানব যা আমাদের সকলের জানা একান্ত প্রয়োজন।কেননা এই নিয়ম কানুন তথা আচার-আচারন সমূহ অনুসরন করে চললে আপনার বাক্তিত্ত হবে আরও সুন্দর।তাহলে চলুন শুরু করা যাক-

  • আপনি যদি চাকুরীজীবী হন তাহলে আপনার বেকার বন্ধুদের সামনে এটা নিয়ে অহংকার করবেন না।সব সময় তাদের সামনে বিনয়ী থাকার চেষ্টা করুন।
  • কারও সাথে সাক্ষাৎ করার সময় দিয়ে দেরি করবেন না,কারন অনেকেই অপেক্ষা করতে পছন্দ করেন না।
  • আপনার হাতে যদি অনেক বেশী কলম অথবা চিপস এর প্যাকেট থাকে এবং আপনি যদি তা থেকে কাউকে দিতে চান তাহলে সব চেয়ে ভালো টি দিন।
  • কোথাও কোন কাজে যদি লাইন ধরতে হয় তাহলে লাইন ভাঙবেন না।কারন আপনার আগে যে এসেছে তাঁর আপনার চাইতেও বেশী তারা থাকতে পারে।
  • আপনি হয়ত কাউকে ফোন দিচ্ছেন কিন্তু সে রিসিভ করছে না,তাহলে তাঁকে একটানা দুই বারের বেশী ফোন দিবেন না,হয়তবা সে ব্যাস্ত আছে।

  • আপনি যদি আপনার বাসায় কাউকে নিয়ে আসেন তাহলে অবশ্যই তা আপনার বাসার সদস্যদের জানান।
  • হাঁচি দেওয়ার সময় অবশ্যই টিস্যু অথবা রুমাল দিয়ে মুখ ঢাকুন।যদি টিস্যু অথবা রুমাল না থাকে তাহলে হাতের কনুই এর উপরের অংশ দিয়ে মুখ ঢাকুন।
  • খাবার খেতে খেতে কথা বলা উচিয় নয়।আপনার জসি এই অভ্যাস থাকে তাহলে অবশ্যই তা পরিত্যাগ এর চেষ্টা করুন।
  • কহন আপনার বন্ধুর বউ এর সাথে পরকীয়ায় জরাবেন না,এমনকি আপনার বন্ধুর বউ এর দিক থেকে পসেটিভ সাইন আস্লেও না।(কারও বউ এর সাথেও পরকীয়াতে জরান উচিত না)
  • পরিচিত অথবা অপরিচিত কারও ঘরে প্রবেশ এর আগে অবশ্যই অনুমতি নিয়ে নিবেন।

  • আপনার পরিচিত বা অপরিচিত কেউ আপনার সাথে তাঁর একান্তও ব্যক্তিগত কথা বললে তা অন্যের সঙ্গে শেয়ার করবেন না।
  • এটিএম থেকে টাকা উত্তোলন করার সময় কাউকে সঙ্গে নিবেন না,বিব্রতকর অবস্থায় পরবেন।
  • কারও ফোনের দিকে নজর দিয়ে পাসওয়ার্ড লেখা দেখবেন না,এমনকি যদি সম্ভব হয় কখনও কারও ফোনের দিকে অপ্রয়োজনে তাকাবেন না।
  • অপরিচিত কাউকে নিয়ে হাসি তামশা করবেন না।কষ্ট পেতে পারে।
  • অনুমতি ছাড়া কখনও কারও মোবাইল ফোন ব্যাবহার করবেন না।

  • পরিচিত অপরিচিত সবাই কে সম্মান করুন,কেননা সম্মান করলে সম্মান পাবেন।
  • আপনার বেডরুম অথবা বাড়ির বাহিরে গান শুনতে চাইলে অবশ্যই হেডফোন ব্যাবহার করুন।
  • পরিচিত বা অপরিচিত কাউকেই কখনও অনাধিকার চর্চা করে উপদেশ দিতে যাবেন না।
  • যেকোনো অনুষ্ঠানে কাউকে নাচার জন্য জোর করবেন না।
  • কখনও ই কাউকে জোর করে মদ্য পান অথবা ধূমপান করাবেন না।

উপরোক্ত নিয়মাবলী/আচার-আচারন গুলো অনুসরন করলে আশা করছি আপনি কখনই কারও কাছে বিরক্তিকর ব্যাক্তি হবেন না।বরং আপনার এই রকম আচার আচারন এর জন্য আপনি সবার কাছে হয়ে উঠবেন প্রিয় পাত্র।লেখাটি ভালো লাগলে অবশ্যই আপনার বন্ধু এবং পরিবারের সদস্যদের সাথে শেয়ার করুন।আর আপনার জানা এমন কোন নিয়ম বা আচার-আচারনের কথা এই লেখায় না পেলে আমাদের কমেন্ট করে জানান,আপনার জানানো কমেন্ট আমরা আমাদের এই লেখায় যুক্ত করে দিব।ধন্যবাদ।

Leave a Comment