সার্চ ইঞ্জিন গুগল এর ৫০০ কোটি ডলার জরিমানা

টেক ডেস্কঃ এবার সার্চ ইঞ্জিন গুগল এর ৫০০ কোটি ডলার জরিমানা করা হল।গুগল এর বিরুদ্ধে অভিযোগ, তাদের ইন্টারনেট ব্রাউজার গুগল ক্রোমে যখন কোন ব্যাবহারকারী তাঁর নিজের তথ্য গোপন রাখার জন্য ‘ইনকগনিটো মোড’ ব্যাবহার করছেন তখনও গুগল সেই ব্যাবহারকারীর তথ্য ট্রাক করছে।

গুগল এর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ অনেকদিন থেকেই করে আসা হচ্ছিল,কিন্তু কোন প্রমান না থাকার কারনে কোন ব্যাবস্থা নেওয়া যাচ্ছিল না।আর এই কারনেই প্রমান মিলতেই এত বড় অংকের জরিমান করা হল এই সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট এর।

কোন ব্যাবহারকারী তাদের তথ্য গুগলকে ট্রাক না করতে দিতে চাইলে গুগল তাদের “ইনকগনিটো মোড” ব্যাবহার করার জন্য সুপারিশ করেন।আর এই কারনেই যে সকল গুগল ক্রোম ব্রাউজার ব্যাবহারকারী তাদের তথ্য গোপন করতে চান তাঁরা ইনকগনিটো মোড ব্যাবহার করে আসছিল।কিন্তু গুগল তাদেরও ছাড় দেয়নি।তাদের ব্রাউজ করা তথ্য এবং অন্যান্য ব্যাক্তিগত তথ্য ব্যাবহারকারীদের অজান্তে এতদিন ট্রাক করে এসেছেন।

ঠিক এমনই অভিযোগে গত বছরের (২০২০) জুন মাসের দিকে তিন জন ক্রোম ব্রাউজার ব্যাবহারকারী গুগলের বিরুদ্ধে মামালা করেন।মামলায় তাঁরা অভিযোগ করেন গুগল শুধু ব্যাবহারকারীদের তথ্য সংগ্রহ না ব্রং সেই তথ্যকে কাজে লাগিয়ে তাঁরা তাদের বিজ্ঞাপনের যে বিশাল বিজনেস আছে তা করে যাচ্ছে।অবশ্য গুগল আদালতের কাছে এই মামলা খারিজ করে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিল।

আর তাদের অভিযোগ সাম্প্রতিক প্রমান হয়ে যাবার কারনে গুগলের এই মামলা থেকে বাঁচার আর কোন পথ খোলা থাকল না।

গত বছরের জুনে করা মামলা খারিজ করে দেওয়ার জন্য গুগল যে আবেদন জানিয়েছিল তাতে বিচারক কোন সাড়া দেন নি।বিচারকরা বলছে ইনকগনিটো মোড চালু থাকলেও তাঁরা যে ব্যাবহারকারীদের তথ্য সংগ্রহ করে এটা তাঁরা (গুগল) তাদের ব্যাবহারকারীদের না জানিয়ে অপরাধ করেছে।আর এই কারনেই গুগলের কাছে ভিযোগকারীদের পক্ষে ৫০০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ চাওয়া হয়েছে।

You might also like
Leave A Reply

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy