৪জি নেটওয়ার্ক কি মানুষের জন্য ক্ষতিকারক হবে? বিস্তারিত পড়ুন

নিশ্চয় ফোরজি নেটওয়ার্ক বা LTE হাই স্পিড নেটওয়ার্ক আপনার দৃষ্টিকে আকর্ষণ করে ফেলেছে। সবাই অনেক বেশি বেশি ইন্টারনেট স্পিড পেতে চায়। তাই দিনের পর দিন ফোরজি নেটওয়ার্ক অনেক জনপ্রিয়তা লাভ করার দিকে অগ্রসর হচ্ছে। তবে অনেকেই বলে থাকে যে এই ফোরজি নেটওয়ার্ক মানুষের স্বাস্থ্য সমস্ত দিকে অনেক ক্ষতি করে থাকে। এতে নাকি অনেক স্বাস্থ্য ঝুঁকি রয়েছে। পরিচিত অনেক হাই স্পিড এর ব্যান্ডউইথ প্রবাহিত করা হয়। আর ব্যান্ডউইথ রেট বাড়াতে অবশ্যই রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি অনেকটাই ছোট করার প্রয়োজনীয়। আর রেডিও ওয়েব ল্যান্থ ধীরে ধীরে যতটা ছোট হয়ে যায় সেটা ততটাই ক্ষতি টার দিকে এগোতে থাকে। ফোরজি নেটওয়ার্ক স্পিড ঠিকমতন দেওয়ার জন্য আগের টাওয়ার গুলোর অনেক ফ্রিকুয়েন্সি আপডেট করা হয়ে থাকে। আবার সিগন্যাল এর মাত্রা যতো বাড়তে থাকবে ক্ষতিকর দিক ততটা বাড়তে থাকবে। আবার আপনার হাতের স্মার্টফোনগুলো ফোরজি সিগন্যাল রিসিভ করতে। মোবাইলের মধ্যে অনেকটা ট্রানস্মিশন লাগানো রয়েছে।

এই বিষয়গুলোর উপর আলোচনা করে গতিময় গবেষণা চালানো হয়েছে। তবে এখনো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে চলেছে। তবে কিছু প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানা যায় এই ফোরজি নেটওয়ার্ক লং টাইম ব্যবহার করলে। ব্রেনের নৌড়াল অ্যাক্টিভিটির মধ্যে ক্ষতি করতে পারে। একটি গবেষণার মধ্যে একটি ইঁদুরের মধ্যে প্রতিদিন ৯ ঘণ্টা রেডিও অ্যাক্টিভেশন চালানো হয়। তারপর এই একই ভাবে এদেরকে দুই বছর পর্যন্ত রাখা হয়। তারপর থেকে গবেষণা করে দেখতে পাই যে এদের গুলির মাথায় কিছু হার্ট টিউমার জন্মাতে আরম্ভ করেছে। অপরদিকে আবার পানির নিচে ছোট ছোট প্রাণীদের ওপর এই ফোরজি নেটওয়ার্ক এর পরীক্ষা চালানো হয়েছিল। ওয়াই-ফাই রেডিয়েশন এ ৯৬ ঘণ্টা। এবং ৩জি রেডিসনে ৭২ ঘণ্টা । এবং ৪জি redioshone ৪৮ ঘন্টা সময় লেগেছিল ঐ ছোট ছোট প্রাণী গুলোকে মেরে ফেলতে।

আমাদের চারপাশে নেটওয়ার্ক উন্নত করার লক্ষ্যে অনেক বেশি পরিমাণে রেডিয়েশন ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু আমাদের একটু খেয়াল রাখ যে কত পরিমান রেডিসন থাকলে আমাদের মানব দেহের কোন ক্ষতি করবে না। মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য রেডিয়েশন কত থাকা দরকার এর জন্য দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে। এটি হলো নন আয়োনাইজিং রেডিয়েশন। আরে কি হলো আয়োনাইজিং রেডিয়েশন। তবে বর্তমানে যে পরিমাণ রেডিয়েশন রয়েছে তাতে আমাদের মানবদেহে তেমন ক্ষতি করবে না বলে মনে হয়। এখন নন আয়োনাইজিং রেডিয়েশন টেকনোলজি মোবাইল ফোনের আওতায় পড়ে তাই এই রেডিয়েশন আমাদের মানব দেহের কোন ক্ষতি করবে না। নন আয়োনাইজিং রেডিয়েশন থেকে আমরা সম্পন্ন নিরাপদ।

রেডিয়েশন যত বড় এবং ছোট হোক না কেন। পর্থক্য রেডিওশন আমাদের দেহের কোষ কে রিয়াক্ট করে। যদিও রেডিয়েশন এর এনার্জি খুব বেশি হয়ে থাকে। সেই কোষের ক্ষেত্রে আন্দোলন শুরু হয়ে যায়। এবং ডিএনএ এক্সট্রাকশন পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে। তাই এসবের কারণে ক্যান্সার টিউমার এবং চর্ম রোগের কারণ হয়। রেডিও তরঙ্গ, সেলফোন তরঙ্গ, বা মাইক্রো তরঙ্গ। নন আয়োনাইজিং রেডিয়েশন এর ক্যাটাগরিতে থাকার কারণে আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হলেও হতে পারে। যদি সেই তরঙ্গগুলি ডিরেক্ট আমাদের শরীরের মধ্য হিট করে।

You might also like
Leave A Reply

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy