ক্রেডিট কার্ড কি?আসুন জেনে নেই ক্রেডিট কার্ড কীভাবে কাজ করে?

অর্থনৈতিক লেনদেনে বিশেষ করে অনলাইন নির্ভর কেনাকাটায় বর্তমান সময়ে ক্রেডিট কার্ড এর ব্যাবহার দিন দিন বেড়েই চলেছে।অনলাইন বলেন আর অফলাইন বলেন কেনাকাটায় ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করা আজকাল খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।সেই সাথে কমেছে কাগজের টাকার ব্যাবহার।তবে আমাদের অনেক এর মধ্য এই জনপ্রিয় মাধ্যম ক্রেডিট কার্ড নিয়ে অনেক ধরনের ভয় কাজ করে।আর এই ক্রেডিট কার্ড ভীতি দূর করতেই আজকের এই লিখা।তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

মানে করেন আপনি চাকুরি করেন এবং আপনার অফিসে বেতন হয় প্রতি মাসের ৮ তারিখ।কিন্তু হঠাৎ করেই মাসের ২৫ তারিখে কোন প্রয়োজনীয় জিনিসের প্রয়োজন হয়ে গেল।কিন্তু আপনার অফিসে বেতন হবে ৮ তারিখ এবং এই মুহূর্তে আপনি কারও কাছে ধারও চাইতে পারছেন না।এই রকম পরিস্থিথিতে ক্রেডিট কার্ড এর কোন বিকল্প নাই।কারন ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করে আপনি সেই প্রোডাক্টটি তখনই কিনতে পারবেন এবং সেই মূল্য আপনি কয়েক মাস ধরে পরিশোধ করার সুযোগ পাবেন।আর এতে করে আপনার এই খরচ আপনার পকেটে কোন বাড়তি চাপ ফেলবে না।তবে আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে আপনার পরিশোধ এর সময় সীমা যেন অতিক্রম না করে,কারন অতিক্রম করলেই আপনাকে গুন্তে হবে জরিমানা।আর বেশিরভাগ মানুষই এই ভুল করে।যার ফলে তাঁরা ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করতে ভয় পায়।

ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহারের আর একটি সুবিধা হল যদি কখনও আপনার ক্রেডিট কার্ড টি চুরি হয়ে যায় এবং কেউ আপনার ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করে জালিয়াতি করে তাহলে আপনার টাকা লস হবার কোন সম্ভবনা নাই।কারন আপনি উপযুক্ত প্রমান সহ অভিযোগ করলেই আপনার টাকা ফেরত পাবেন।এমন কি কার্ড প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান পুর অর্থ আপনাকে ফেরত দিয়ে দিবে।তবে এই ক্ষেত্রে ভাল উপায় হল ক্রেডিট কার্ড টি হারিয়ে গেলে অথবা চুরি হয়ে গেলে সাথে সাথে কার্ড প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান কে জানানো।এবং কার্ড এবং কার্ড এর পিন নাম্বার কখনই একসাথে না রাখা।আর এই কারনেই বলা হয় নগদ টাকা,ডেবিট কার্ড অথবা চেক ব্যাবহারের চাইতে ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করা উত্তম।

ক্রেডিট কার্ড এর আরও একটি সুবিধা হল কোন কোন কার্ড প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ০% সুদে ক্রেডিট কার্ড এর বিপরীতে ঋণ দিয়ে থাকে।আবার অনেক প্রতিষ্ঠান আছে যারা ক্রেডিট কার্ড এর ঋণ এর বিপরীতে অনেক বেশি সুদ নিয়ে থাকে।এখন প্রশ্ন হল কেউ মাত্র ০% সুদে ঋণ দিচ্ছে আবার কেউ অনেক বেশী সুদ নিচ্ছে কেন?আসলে এই ২ টায় করা হয় গ্রাহক এর সুবিধার কথা চিন্তা করে।যারা ০% এ ঋণ দিচ্ছে তাঁরা চিন্তা করছে যেন তাদের ক্রেডিট কার্ড গ্রাহক কোন অতিরিক্ত চাপ ছারাই ঋণ পরিশোধ করতে পারে।আবার যারা উচ্চ সুদে ঋণ দিচ্ছে তাঁরা গ্রাহক কে বুঝাতে চাইছে যে তুমি তোমার ঋণ দ্রুত পরিশোধ কর না হলে উচ্চ সুদে তোমার ঋণ পরিশোধ করতে হবে।আর এই উচ্চ সুদের কথা চিন্তা করে গ্রাহক যেন তার ঋণ আগেই পরিশোধ করে দেয় আর তাঁরা যেন কোন অতিরিক্ত ঋণের চাপে না পরে।

আপনার একটি ক্রেডিট কার্ড থাকলে আপনি খরচ করার পাশাপাশি কিছু আয় ও করতে পারবেন।যেমনঃ অনেক ক্রেডিট কার্ড কোম্পানি ক্যাশ ব্যাক অফার দেয়,বিদেশ ভ্রমনে বমান টিকিটে ছাড় দেয়,হোটেলে রুম বুকিং এর সময় ছাড় দেয়।এসব সুবিধা কিন্তু আপনি ডেবিট কার্ড,নগদ অর্থ অথবা চেক এর মাধ্যমে পরিশোধ করলে পান না।সুতরাং ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করলে খরচ করার পাশাপাশি কিছু অর্থ আয় ও করা যায়।যা আপনি অন্য কাজে ব্যাবহার করতে পারেন।

কোন কারনে আপনার যদি নির্দিষ্ট কোন ক্রেডিট কার্ড পছন্দ না হয় তবে আপনি কার্ড প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান এর সাথে যোগাযোগ করে নামমাত্র ফি এর মাধ্যমে আপনার ক্রেডিট কার্ডটি পরিবর্তন করে নিতে পারবেন।আর ক্রেডিট কার্ড এর সিস্টেম যেহেতু এমন যে আপনি এখন এই ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করে কিছু কিনলেন সেইটা কিন্তু একটা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্য আপনাকে পরিশোধ করতেই হবে না হলে আপনার ঋণ বাড়বে।

সুদই ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহারে একমাত্র ঝুকি নয়।ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করলে আপনার সময় জ্ঞান থাকা উচিত।কারন সময় মত ক্রেডিট কার্ড এর পাওনা পরিশোধ না করলে আপনার ঋণ বাড়বে।আবার ক্রেডিট কার্ড এর যে খরচের সীমা থাকে তা অতিক্রম করলে আপনাকে জরিমানা গুনতে হবে।আবার আপনি যদি ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করে এটিএম থেকে টাকা তুলতে চান তাহলে আপনাকে একটা নির্দিষ্ট পরিমান ফি দিতে হয়।এসব বিষয়ে খেয়াল রেখে ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করলে,ক্রেডিট কার্ড অনেক সুবিধাজন আপনার জন্য,আর খেয়াল খুশি মত ব্যাবহার করলে অর্থাৎ আপনার সময় জ্ঞান না থাকলে আপনার ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার না করায় উত্তম।

Leave a Comment