DSLR ক্যামেরা চালোনোর কিছু নিয়ম শিখুন খুব সহজেই

বর্তমান সময় হচ্ছে ডিজিটাল যুগ। এবং ডিজিটাল যুগে তৈরি হয়েছে ডিজিটাল ক্যামেরা। ফেসবুক থেকে ইউটিউব সব যায়গায় এখন DSLR ক্যামেরা। তাই আজকে আমি DSLR ক্যামেরা চালোনোর কিছু নিয়ম নিয়ে আর্টিকেল লিখতে শুরু করতেছি। তো আশাকরি আমার এই আজকের আর্টিকেল আপনাদের অনেক অনেক কাজে দিবে। বিশেষ করে যারা নতুন করে ক্যামেরা কিনবেন বা কিনে ফেলেছন। তাদের জন্য বেশ উপকারী হবে আমার এই আর্টিকেলটি। তো কথা না বারিয়ে আমি আর্টিকেলটি লিখতে থাকি। আর আপনারা খুব মনোযুগ সহকারে আমার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পরতে থাকুন। আপনি একজন ক্যামেরা ম্যান হয়ে যাবেন।

তবে আমি আজকে আপনাদের মাঝে যে ক্যামেরাটি নিয়ে কথা বলব সেটি হচ্ছে canon k7i । যেটা আমি এই মডেল এর জাপানি ভার্সন আমি ব্যভার করতেছি। এবং এই চামেরার ইংলিশ ভার্সন হচ্ছে 700D । তো ভিউআর আমি আজকে আমার জাপানী ভার্সন দিয়ে আর্টিকেল শুরু করব।

প্রথমে আপনি ক্যামেরা ইন্টারপ্রেস এ চাপ দিয়ে অন করবেন। বা ক্যামেরাটি চালু করবেন। তারপর আপনি চামেরার ম্যানুয়াল অপশন এ যাবেন। তারপরেই প্রতমে সাটারস্পীড কে আগে কন্ট্রোল করে হবে। এবং সাটার স্পীড যদি অনেক কমিয়ে দেন তাহলে আপনার ইমেজ কুয়ালিটি অনেক ভারী হয়ে যাবে। আর যদি শাটার স্পীডটাকে যদি বারিয়ে দেম তাহলে আপনার চামেরার ইমেজ গুলি অনেকটা কালো বা লো ব্রাইড হয়ে যাবে । এতএব ইমেজ কুয়ালিটি অনেক লো হয়ে যাবে। আপনি ইচ্ছে করলে মিডিয়াম বা বেশিতে রাখতে পারেম শাটার কে। বা আপনার ছবির ক্যাপচার এর উপর ডিফেন্ড করে আপনি আপনার ক্যামেরা এর শাটার পরিবর্তন করা লাগতে পারে। তারপরেও এগুলি আপনার ইচ্ছামতো করবেন। মানে আপনি যে রকম করে ছবি শুট করতে চান সেটির মতো করে কাস্টমাইজ করে নিবেন। এতে ভাল করে ছবি তুলতে পারবেন।

তারপর আমরা আসি অ্যাপারচার নিয়ে । এটি যতো আপনি লো করবেন ততো আপনআর ইমেজ বা ছবির মধ্যে লাইট বেশি হবে। বা আপনার ক্যাপচার করা ছবির মধ্যে আলো বেশি হবে। এই আপনি সাধারনত আপনার যে যাইয়গায় শুট করা লাগবে আপনি সেই যায়গায় সেরক ভাবে অ্যাপাচার করে নিবেন। তাতে আপনার ছবির কোয়ালিটি এবং মান উন্নত করতে পারবেন।আজকে আমি এই পরযন্তই বলব। আবার পরবর্তী আর্টিকেল এ আমি আবার এই বিষয় নিয়ে বলব। সে পর্যন্ত সকলে ভালো থাকুন।

Leave a Comment