Primo RX7 ওয়ালটোনের সেরা বাজেট ফোন এবং সেরা ফিচার!

শ্যালো ডেফত অফ ফিল্ড ইফেক্ট মানে, আপনি দেখেছেন যে ছবি উঠানোর সময় আপনার সামনে থাকা সাবজেক্ট এর ছবি পরিষ্কার হয় এবং সাবজেক্ট এর পেছনে ঘোলা ইফেক্ট থাকে, তো আপনার ক্যামেরার অ্যাপারচার নাম্বার যতো কম হবে এই ইফেক্ট ততো ভালো দেখতে পাওয়া যাবে।

Primo RX7 এর সেকেন্ডারি রিয়ার ক্যামেরার অ্যাপারচার f/2.0, সুতরাং এর মাধ্যমে আপনি দারুন সব ছবি তুলতে পারবেন, যেখানে ছবির কোয়ালিটি যেমন সুন্দর থাকবে, তেমনি সাবজেক্টকে ফোকাসে রেখে ব্যাকগ্রাউন্ড ঘোলা করতেও সুবিধা হবে। আর এই ক্যামেরায় থাকা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স প্রযুক্তি, ছবির বিষয় এবং পরিবেশ এর ওপর বিবেচনা করে নিজে থেকে ছবিতে কিছু ইন্টেলিজেন্স ইফেক্ট ও এডজাসমেন্ট প্রয়োগ করবে। ডুয়াল ক্যামেরা মডিউল এর সাথে থাকবে একটি ভালো মানের ফ্ল্যাশ।

এর সামনের ফ্রন্ট ক্যামেরায় পাওয়া যাবে ফেস ডিটেকশন অটোফোকাস প্রযুক্তি, যদিও এটি রিয়ার ক্যামেরাতেও বিদ্যমান। এখানে এই ফেস মানে হচ্ছে পর্যায়, দূরত্ব। এখানে সফটওয়্যার নিজে থেকে সাবজেক্ট এবং ব্যকগ্রাউন্ড এর দূরত্ব পরিমাপ করে, সাবজেক্টকে খুব ভালোভাবে ফোকাসে রাখতে সাহায্য করে। Primo RX7 এর ফ্রন্ট প্যানেলে পাওয়া যাবে ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা, যার দ্বারা দারুন দারুন সব সেলফি তোলা ফোনটি কেবল আপনার হাতে পাওয়ার অপেক্ষা।

সিকিউরিটিঃ ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, ফেসআইডি

সিকিউরিটি এর জন্য প্রাইমারি মেথড হিসেবে আপনি পাবেন একটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। আর ব্যবহারে এই ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরকে মোটামোটি ফাস্ট মনে হয়েছে। আপনি একসাথে ৫ টি আঙ্গুল এর ছাপ ফোনে সেইভ করে রাখতে পারবেন। এর স্পেসিফিকেশনে পাওয়া যায় এর রেসপন্স টাইম ১০০ মিলিসেকেন্ড এরও কম, আর বাস্তবেও এর ফাস্টনেস আমার কাছে ১ সেকেন্ডেরও কম লেগেছে।

সেকেন্ডারি মেথড হিসেবে এতে থাকছে ২ডি ফেস আইডি আনলক। এর ১৩ মেগাপিক্সেল দারুন একটি ফ্রন্ট ফেসিং ক্যামেরা থাকার কারনে ফেসআইডি ফিচার মোটামটি ভালই কাজ করবে।

পরিশেষে

ফোনটিতে পাওয়া যাবে টাইপ সি চার্জ এবং ডাটা ট্রান্সফারিং পোর্ট। এবং সম্পূর্ণ ডিভাইসকে ব্যকআপ দিবে একটি ৩৯০০ এমএএইচ এর লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি। আর এই ব্যাটারি ডিভাইসকে অন্তত ফুল চার্জএ সারাদিন ব্যকআপ দিতে পারবে।

মোট কথায়, ১৪০০০ হাজার টাকায় দেশীয় ব্র্যান্ড হিসেবে ওয়ালটন’এর এই স্মার্টফোনটিকে একটি ‘ফুল ফিচারড প্যাক’ বলা যায়। একটি আদর্শ স্মার্টফোনের এমন কোন কাজ নেই যা এতে করা যাবে না। তাই এই বাজেটে যদি কেউ কোন ভালো স্মার্টফোন কেনার ব্যাপারে ভেবে থাকেন, তবে দেশীয় ওয়ালটন’এর এই প্রিমো আরএক্স৭ এর কথা চিন্তা করতে পারেন।

You might also like
Leave A Reply

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy