মোবাইল ফোন আমাদের জন্য আশির্বাদ?নাকি অভিশাপ?

আচ্ছা বলুন ত আপনার হাতে থাকা ছোট এই মোবাইল দিয়ে কি কি কাজ করা সম্ভব?সুধু ফেসবুক ব্যাবহার,ইউটিউবে ভিডিও দেখা,গেম খেলা,আর গান শোনা আর ভিডিও দেখা আর ছবি তোলা?আপনার কি ধারনা?তা এই পোস্টের শেষে মন্তব্য করে জানাবেন প্লিজ।আপনার হাতে থাকা ছোট এই মোবাইল ফোন দিয়া এত কিছু করা সম্ভব যে আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না।আবার এই মোবাইল যদি কোন ভাল মানের মোবাইল ফোন হয়ে থাকে তাহলে ত আর কথায় নেই।এটা ঘিরে আমাদের হয়ে যায় এক অজানা রহস্য।

আপনি এখন এই মুহুরতে নতুন কোন মোবাইল ফোন কিনে আনলে আপনার এই ফোনের কথায় কোন অপশন আছে এটা বুঝে উঠতেই আমাদের অনেক কয়েক সপ্তাহ বা কয়েক মাস লেগে যায়।যা আমাদের অনেক মূল্যবান সময় নষ্ট করে।আবার আমাদের ভেতর এমন অনেকেই আছে সারা দিন এই মোবাইল নিয়ে পড়ে থেকেও কিছু বুঝে উঠতে পারে না।

এই মোবাইল আমাদের জিবনের প্রতিটা মুহূর্ত কে ধরে রাখতে কতটা সাহায্য করে তা আমরা ফেসবুকে গেলেই বুঝতে পারি।প্রতিদিন প্রতি মুহূর্তের ছবি ভিডিও আমরা সবাই এই ছোট মোবাইল ব্যাবহার করে ধারন করছি এবং তা আমাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করছি।আমাদের হাতে থাকা ভাল মানের মোবাইল ফোনের কারনে আমরা এখন সবাই ভাল মানের শিল্পি হয়ে গিয়েছি।এছারা আমাদের দূরে থাকা আত্মীয় এবং বন্ধুদের সাথে ভিডিও কল এর মাধ্যমে সরাসরি কথা বলতে পারছি।এক কথায় এই মোবাইল ফোন আমাদের জবন করেছে সহজ আর পৃথিবী এনে দিয়েছে হাতের মুঠোয়!

আর সবচেয়ে অবাক করা ব্যাপার হল,মোবাইল ফোনই একমাত্র যন্ত্র যা আমাদের দেশের সকল মানুষ ব্যাবহার করে।দেশের সবাইকে এনে দিয়েছে আধুনিকতার ছোঁয়া!বর্তমান সময়ে মোবাইল ফোন অনেক সহজ লভ্য একটু পণ্য।তবে মোবাইল ফোন ব্যাবহারের কিছু ভাল এবং খারাপ দিক রয়েছে,আমরা মোবাইল ফোনের ব্যাবহার সম্পর্কে অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করব।এখানে একটা কথা না বললেই নয় যে মোবাইল ফোন সুধুই একটি যন্ত্র,আমরা এটিকে কীভাবে ব্যাবহার করব তা সব সময়ই আমাদের উপরে নিরভর করে।যদি আমরা ভাল কাজে ব্যাবহার করি তাহলে মোবাইল ফোন খুব ভাল।আর যদি খারাপ কাজে ব্যাবহার করি তাহলে আমরা ই খারাপ।এটার দায়ভার কখনই মোবাইল ফোনের না।আমরা যদি মোবাইল কে ভাল কাজে ব্যাবহার করি তাহলে মোবাইল ফোন আমাদে সকলের জন্য একটি আশির্বাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.