আসুন জানি ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ডের মধ্যে পার্থক্য সমূহ

সাধারণত অনলাইনে কেনাকাটা করা যায় এসব কার্ড কে আমরা মাস্টারকার্ড হিসাবেই জানি।কিন্তু আপনি জানেন কি এই কার্ড গুলো আবার দুই রকমের আছে!ক্রেডিট কার্ড এবং ডেবিট কার্ড।ক্রেডিট অথবা ডেবিট দুই ধরনের কার্ড দিয়েই আপনি অনলাইনে কেনাকাটা অথবা যেকোনো দোকানে বিল পরিশোধ করতে পারবেন।তার পরেও এই ক্রেডিট আর ডেবিট কার্ড এর মধ্য কিছু পার্থক্য রয়েছে।আমাদের আজকের এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আমরা জানবো  ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ডের মধ্যে পার্থক্য সমূহ কি কি?

ডেবিট কার্ড মূলত আপনার ব্যাংক চেক এর মতও কাজ করে।অনেকেই ডেবিট কার্ড কে ইলেক্ট্রনিক চেক বলে থাকে।আর এটা বলার কারন ও আছে।কারন আপনি যখন আপবার ডেবিট কার্ড ব্যাবহার করে কোন কিছু কিনেন অথবা কোন বিল পরিশোধ করেন তখন আপনার এই পরিশোধিত বিলকে সরাসরি আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা উত্তোলন করা দেখানো হয়ে থাকে।

ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ড এর মত প্লাস্টিক কার্ড।ক্রেডিট কার্ড এর বিপরীতে ব্যাংক সেই গ্রাহক এর একটি নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ ঋণ হিসাবে দিয়ে থাকে এবং সেই ঋণ এর বিপরীতে একজন ক্রেডিট কার্ড হোল্ডার ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করে কেনাকাটা অথবা নগদ অর্থ উত্তোলন করতে পারে এবং একটি নির্দিষ্ট মেয়াদ শেষে সেই টাকা ব্যাংককে ফেরত দিতে বাধ্য থাকে।

আপনি যখন ডেবিট কার্ড ব্যাবহার করে কোন পণ্য অথবা সেবা ক্রয় করেন তখন সাথে সাথেই আপনাকে সেই টাকা আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে পরিশোধ করতে হয়,অপরদিকে আপনি যখন ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করে কোন পণ্য বা সেবা ক্রয় করেন আপনাকে সাথে সাথে টাকা দিতে হয় না।এই টাকা আপনাকে পরবর্তীতে ব্যাংকে জমা দিতে হয়।এই জন্য আমরা ডেবিট কার্ড কে ক্যাশ কার্ড আর ক্রেডিট কার্ড কে ঋণ কার্ড বলতে পারি।আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে যে পইরিমান টাকা থাকবে আপনি ডেবিট কার্ড ব্যাবহার করে ঠিক সেই পরিমান পণ্য বা সেবা ক্রয় করতে পারবেন এবং ক্রেডিট কার্ড এর বিপরীতে পাওয়া ঋণ এর সীমা পর্যন্ত আপনি ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করে পণ্য বা সেবা কিনতে অথবা নগদ অর্থ উত্তোলন করতে পারবেন।

আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে যে পরিমান টাকা থাকবে সেই পরিমান টাকা ই আপনি ডেবিট কার্ড এর মাধ্যমে ব্যাবহার করতে পারবেন,এবং ক্রেডিট কার্ড এর জন্য যে ঋণ সীমা দেওয়া থাকবে সেই পরিমান অর্থ আপনি ক্রেডিট কার্ড এর মাধ্যমে ব্যাবহার করতে পারবেন।ডেবিট কার্ড এর জন্য ব্যাংক গ্রাহক কে মুনাফা প্রদান করে এবং ক্রেডিট কার্ড এর জন্য ব্যাংক গ্রাহক এর কাছে থেকে মুনাফা গ্রহন করে।

আপনি যদি ডেবিট কার্ড ব্যাবহার করে কোন কিছু কিনে থাকেন তাহলে আপনাকে একবারই পরিশোধ করতে হয়,অপর দিকে ক্রেডিট কার্ড দিয়ে কেনাকাটা করলে আপনাকে দুই বার পেমেন্ট করতে হয়।আপনি যদি ডেবিট কার্ড ব্যাবহারকারী হয়ে থাকেন তাহলে এই কেনাকাটার জন্য আপনাকে কোন রকম প্রসেসিং ফি প্রদান করতে হয় না,অপরদিকে আপনি যদি ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করে কেনাকাটা করে থাকেন তাহলে সেই মূল্য পরিশোধের জন্য আপনাকে আবার প্রসেসিং ফি প্রদান করতে হয়।

একজন ডেবিট কার্ড ব্যাবহারকারীকে কখনই তার লেনদেন এর স্টেটমেন্ট প্রদান করা হয় না।কিন্তু একজন ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহারকারীকে প্রতিটা লেনদেন এর পর স্টেটমেন্ট প্রদান করা হয়।সেই স্টেটমেন্টে কত টাকা ব্যাবহার করা হল,আর কত টাকা ব্যাবহার করতে পারবে।বিল জমা দেওয়ার শেষ তারিক কত,সর্বনিম্ন কত টাকা জমা দিতে হবে ইত্যাদি তথ্য সহ স্টেটমেন্ট প্রদান করা হয়।

উপরের লেখার মাধ্যমে আপনি জানলেন ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ডের মধ্যে পার্থক্য সমূহ কি কি?এখন আপনার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পালা যে কোনটা আপনার জন্য উপযুক্ত।ক্রেডিট কার্ড নাকি ডেবিট কার্ড আপনার ব্যাবহারের জন্য উপযুক্ত।আমার কাছে ডেবিট কার্ড ব্যাবহার করাটাই সব দিক দিয়ে ভালো মনে হয়।আপনার কোনটা ভালো লাগে টা অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন।এই আর্টিকেল পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

আরও পড়তে পারেনঃ করোনা ভাইরাসের ইতিহাস,করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সকল তথ্য জেনে নিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *