আইফোনের কয়েকটি লুকানো ফিচার যা আইফোনের যতেষ্ট উন্নত করবে!

হাই বন্ধুরা, আশাকরি সবাই ভালই আছেন। প্রতিবারের মতই আজকে আমি ধারাবাহিক আর্টিকেল সিরিজ নিয়ে আপনাদের মাঝে হাজির হলাম। আজকে আমিও আপনাদের মাঝে বিশেষ কিছু দরকারি পোস্ট নিয়ে এসেছি। আজকের আর্টিকেলটি মুলত আইফোনের বিশেষ কিছু নিয়ে। আজকে আমি আইফোনের কিছু লোকানো বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। যদিও আমাদের দেশে বেশি ব্যবহারকারী হলো অ্যান্ড্রয়েড। তবে এর মধ্যো দিয়ে আবার কিছু আইফোন ব্যবহারকারী রয়েছে।

আমরা একটি অ্যান্ড্রয়েড ফোন এর ফাংশনগুলি খব সহজেই বুজতে পারি। আবার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে খুব বেশি আপডেট আসে না। আবার যা আপডেট আশে তা আবার আখুব বেশি কিছু চেঞ্জ হয় না। কিছু কিছু সমস্যা থাকলে তা দ্রুত ঠিক হয় এই তো। কিন্তু আইফোন এর মধ্যে যে আপডেটগুলি আসে তা হয়তো অনেক জটিল মনে হতে পারে আপনার কাছে। একটু হওয়ারই কথা। কেনোনা- যেহেতু আমাদের দেশে আইফোন ব্যবহারকারী খুব কম সংখ্যক তাই এটাক একটু জটিল মনে হতে পারে। তো যাই হোক আপডেট আশার পরে আইফোন অনেক অপশন লোকানো থাকে পারে। যার কারনে আমাদের এই আইফোন এর আপডেট হওয়ার পর নতুন কিছু দেখতে পারি না। এবং আইফোনকে আলাদা ভাবে উন্নত করতে পারি না। তাই আজকে আমি এই বিষয়ে একদম ক্লিয়ার করার জন্য আজকের আর্টিকেল। তো বন্ধুরা আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

আইফনের মধ্যে কিছু সেরা আপডেট ফিচার নিয়ে এখন আলোচনা করব। যেমন বর্তমান সময়ের আইফোনের মধ্যে এমন আপডেট এসেছে বা নতুন ফিচার এসেছে। সেটি হলো আগে আপনি আইফোন এর মধ্যে ব্যবহার করা নাল অ্যাপ ও ব্যবহার করেছেন। বা কোনো নাল থিম ইন্সটল করার আগে সেটি কোনো ভাবেই জানতো না। কিন্তু এখন আর সেটি নেই। এখন কোনো নাল বা ভাইরাস অ্যাপ ইন্সটল করার আগে আপনার আইফোনটি আপনাকে জানিয়ে দিবে। আসাকরি এই সিস্টেমটি আইফোন হ্যাক হওয়া থেকে দূরে রেখে। আইফনকে বিশেষ ভাবে সুরিক্ষিত রাখতে পারবেন।

এবং আরেকটি সুন্দর ফিচার হলো কিউ আর কোড স্ক্যান করা। এটি আরো সহজভাবে পাবেন বর্তমান আপডেট এর পর। আপনি ক্যামেরাতে চলে যান। তারপর আপনি ক্যামেরা নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রে চলে যান। সেখানে গিয়ে আপনি একটি কিউয়ার কোড স্ক্যান করার জন্য বিল্ড ইন ভাবে যুক্ত করে দিয়েছে। যা ইন্টারনাল স্টোরেজের জন্য অনেক উপকারী হয়েছে। আজকে আমি এই পর্যন্তই আলোচনা করলাম। কথা হবে আবার আগামী কোনো আর্টিকেল নিয়ে। তাই সবাই ভাল থাকবেন। ধন্যবাদ

Leave a Comment