গুগল অ্যাডসেন্সে কাজ করার জন্য কিছু হাই পেয়িং নিশ

এর আগের আর্টিকেলে আমি আলোচনা করেছিলাম গুগল অ্যাডসেন্স থেকে বেশী আয় করার সেরা কিছু কৌশলআজকে আমরা এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে জানবো,গুগল অ্যাডসেন্সে কাজ করার জন্য কিছু হাই পেয়িং নিশ সম্পর্কে,অর্থাৎ কোন ব্লগিং টপিক গুলো নিয়ে কাজ করলে আমরা গুগল অ্যাডসেন্স থেকে বেশী আরনিং করতে পারব।অর্থাৎ আমরা আজকে গুগল অ্যাডসেন্সে কাজ করার জন্য কিছু হাই পেয়িং নিশ নিয়ে আলোচনা করব।যে নিশ বা টপিক গুলো নিয়ে কাজ করলে আমাদের অ্যাডসেন্স আরনিং বেড়ে যাবে অনেকগুন।তাহলে চলুন শুরু করি……

আপনি যখন এই আর্টিকেল পড়া শুরু করেছেন তখন আমি ধরেই নিলাম আপনি অ্যাডসেন্সে একজন অভিজ্ঞ ব্যাক্তি এবং ব্লগিং নিশ কি এই ব্যাপারে আপনার বিস্তর জানাশোনা আছে।আর যাদের জানা নেই তাদের জন্য শুধু এক লাইনে ধারনা দিচ্ছি যে ব্লগিং নিশ কি?আমরা আমাদের ব্লগে যে টপিক নিয়ে লেখালিখি করি ওইটাই নিশ।আপাতত এক লাইনেই থাক পরে কোন পোস্টে এই ব্যাপারে বিস্তর আলোচনা করা যাবে।

বর্তমান সময়ে আপনার ব্লগিং এর বেশিরভাগ ভিসিটর যদি আমেরিকা থেকে আসে অথব আপ্নাই আমেরিকার ভিসিটর টার্গেট করে কাজ করতে চান তাহলে আপনার জন্য উপযুক্ত ব্লগিং নিশ হল ইনস্যুরেন্স অর্থাৎ,জীবনবীমা। ইনস্যুরেন্স খুবই জনপ্রিয় একটি নিশ এবং এই নিশে গুগল অ্যাডসেন্স এভারেজ আপনাকে $17.55 পে করে এবং আপনি ইনস্যুরেন্স নিশে $55 পর্যন্ত পেতে পারেন প্রতি ক্লিক এর জন্য।

হেল্‌থ ইনস্যুরেন্স,হোম ইনস্যুরেন্স,অটো ইনস্যুরেন্স,লাইফ ইনস্যুরেন্স সবই এই নিশ এর আওতাভুক্ত।এবং বিজ্ঞাপন দাতারা সবসময়ই ইনস্যুরেন্স বিজ্ঞাপনে একটি ক্লিক এর বিপরীতে বেশী অর্থ প্রদান করতে ইচ্ছা প্রকাশ করে কারন এসব অ্যাডে বেশিরভাগ সময়ই তাঁরা “Return on Investment” পদ্ধতি ফলো করে।তবে ইউএসএ টার্গেট করে ইনস্যুরেন্স ছারাও ব্যাংক লোন এবং ব্যাংকিং রিলেটেড যেকোনো নিশ অনেক লাভজনক।নিচে আমেরিকা টার্গেট ব্লগের জন্য কিছু লাভজনক নিশ এবং তাদের এভারেজ সিপিসি দেওয়া হলঃ-

  • Insurance: $55 CPC
  • Loans: $47 CPC
  • Gas/Electricity: $41 CPC
  • Mortgage: $38 CPC
  • Attorney: $37 CPC
  • Credit: $37 CPC
  • Lawyer: $31 CPC
  • Donate: $28 CPC
  • Conference Call: $23 CPC
  • Degree: $18 CPC

নোটঃ আপনি চাইলে এসব নিশ নিয়ে আমেরিকা ছারাও অন্যান্য দেশ টার্গেট করেও কাজ করতে পারেন এবং সেইক্ষেত্রেও আপনার আরনিং সাধারণ নিশ এর চাইতেও বেশী থাকবে।

এবার আপনার ভিসিটর যদি বেশিরভাগ ইউএসএ,কানাডা এবং ইউনাইটেড কিংডম ভিত্তিক হয়ে থাকে তাহলে আপনি এডুকেশন নিশ নিয়ে কাজ করতে পারেন।এইসব দেশে এডুকেশন নিশ নিয়ে কাজ কাজ করলে যে সুবিধা আপনি পাবেন তা হল আপনার প্রতিযোগিতা অনেক কম থাকবে।আপনি এডুকেশন নিশ থেকে মকেমন আয় করতে পারবেন তা নিচের নিশ টপিক এবং সিপিসি দেখলেই বুঝতে পারবেন।

  • Education: $15 CPC
  • Digital Marketing: $12 CPC
  • Telecom: $11 CPC
  • Web Hosting: $7 CPC
  • Healthcare: $37 CPC

উপরের নিশ গুলো ছাড়া অনন্যা নিশ থেকে আপনি তেমন আয় করতে পারবেন না।এই নিশ গুলো ছাড়া অন্যান্য নিশ গুলো থেকে আপনি প্রতি ক্লিকের জন্য আপনি এভারেজ $2.28 পর্যন্ত পেতে পারেন।তবে একটা ট্রিকস ব্যাবহার করে আপনি সহজেই আপনার আরনিং বাড়াতে পারেন 😛 ধরুন আপনার কোন ব্লগ আছে এবং সেই ব্লগে আপনি অ্যাডসেন্স ও পেয়েছেন এবং অনেক ভিসিটর আছে।কিন্তু আপনার নিশ বর্তমানে কোন লো পেইং নিশ।তাহলে আপনি সেই ব্লগে হাই পেইং নিশ এর কিছু আর্টিকেল পাবলিশ করে সেই নিশ রিলেটেড বিজ্ঞাপন থেকে ভালো পরিমান আয় করতে পারবেন।

আপনি হয়ত বিভিন্ন ব্লগে পরে থাকবেন যে এমন করে এক নিশে অন্য নিশের আর্টিকেল দেওয়া যায় না।আমি বলছি ভাই এই কথা গুলো সম্পূর্ণ ভুয়া!উপরে যে ট্রিকস এর কথা বললাম সেইটা ১০০% পরীক্ষিত।

এবার আমরা জানবো কেন গুগল অ্যাডসেন্স কিছু নিশে এত বেশী পে করে?

গুগল অ্যাডসেন্স কিছু নিশে অনেক বেশী পে করে,কারন এই নিশের যে প্রতিষ্ঠান গুলো আছে (যারা অ্যাড দেই অ্যাডসেন্সে) তাঁরা অনেক সর্বাধিক প্রতিযোগিতামূলক প্রতিষ্ঠান এবং তাদের কাস্টমার ভ্যালুও অনেক বেশী।এই প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের একটি ক্রেতাকে খুজতে অনেক বেশী বাজেট করে,কারন তাঁরা জানা যে পরিমান টাকা একজন কাস্টমার কে খুঁজে নেওয়ার জন্য ব্যায় হবে তার কয়েকগুন টাকা তাঁরা তাদের সেই কাস্টমার এর কাছে থেকে আয় করতে পারবে।আর এই একটি মাত্র কারনে এই অ্যাডগুলির উচ্চমূল্য থাকে এবং সেই কোম্পানিগুলো গুগল অ্যাডসেন্সে যেন বেশী বেশী দেখায় এই জন্য বেশী পরিমান ডলার বিড করে।আর এই বেশী বিড করার কারনেই আমরা যারা অ্যাডসেন্স পাবলিশার আছি তারাও এসব বিজ্ঞাপন ক্লিক থেকে বেশী আয় করতে পারি।

হাই পেইং গুগল অ্যাডসেন্স নিশে কাজ করার জন্য কি কি বিষয়ে জ্ঞান থাকা দরকার?

আপনি কি উপরের লেখাটুকু পরে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন?যে আপনি হাই পে করে এমন নিশ নিয়ে কাজ করবেন?আপনি যদি অভিজ্ঞ কেউ হয়ে থাকেন তাহলে আপনাকে স্বাগতম আর যদি নতুন কেউ হয়ে থাকেন তাহলে ভাই থামেন কথা আরও বাকি আছে।আপনি যদি নতুন হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি নতুন ওয়েবসাইট খুলেছেন?ওয়েবসাইট সম্পর্কেও তেমন বুঝেন না এবং এসইও এবং আর্টিকেল রাইটিং সম্পর্কেও আপনার তেমন আইডিয়া নাই।তাহলে আমি বলব এই হাই পেইং নিশ আপনার জন্য না।কারন হাই পেইং নিশ নিয়ে কাজ করতে গেলে আপনাকে অবশ্যই এক্সপার্ট হতে হবে।আপনি হয়ত বলতে পারেন ভাই আমার টাকা আছে আমি নিজে না জানি আমার কাছে Invest করার মত টাকা আছে আমি টাকার বিনিময়ে কাজ করে নিব!আমি এবারও বলব ভাই থামেন,অন্যকে দিয়ে কাজ করে নিতে চাইলেও অন্তত আপনার সেই কাজের ব্যাপারে অভিজ্ঞ হতে হবে।নাহলে আপনি যাকে দিয়ে কাজ করিয়ে নিবেন সে আপনাকে ফাঁকি দেওয়ার যে সুযোগ পাবে,তাতে আপনার টাকা পুরোটাই পানিতে।

হাই পেইং অ্যাডসেন্স নিশ নিয়ে কাজ করতে গেলে আপনার অবশ্যই একটি প্রফেশনাল ওয়েবসাইট/ব্লগ থাকা জরুরি।ওয়েবসাইট/ব্লগ ম্যানাজ করার মত ধারনা থাকা জরুরী।ব্লগিং এর গুরুত্বপূর্ণ পার্ট হল এসইও এবং কন্টেন্ট সুতরাং এই বিষয় হ্যানডেল করার মত অভিজ্ঞতাও আপনার থাকতে হবে।আপনার এমন কিছু আর্টিকেল সাইটে থাকতে হবে যে আর্টিকেল গুলোর জন্য ভিসিটর বার বার আপনার ব্লগে আসবে।এবং আপনার প্রতিটি আর্টিকেল অবশ্যই অন-পেজ এসইও এবং অফ-পেজ এসইও ভালোভাবে করতে হবে।

আপনি যখন নতুন কাজ করা শুরু করবেন তখন অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইট এর তেমন “Authority” থাকবে না।এখন আপনি প্রশ্ন করতেই পারেন Authority কম থাকলে সমস্যা কি?সমস্যা হল আপনি যখন কোন নতুন ওয়েবসাইট নিয়ে হাই পেইং নিশ নিয়ে কাজ শুরু করবেন তখন আপনার আর্টিকেল গুলো গুগল সার্চে র‍্যাঙ্ক করার সম্ভবনা খুবই কম।হাই পেইং নিশ নিয়ে কাজ করতে গেলে আপনাকে দিনে দিনে ভালো কন্টেন্ট দিতে হবে এবং আপনার ওয়েবসাইট এর Authority বাড়াতে হবে।কারন গুগল সর্বদা নতুন কন্টেন্ট পছন্দ করে।

আজকে এই পর্যন্তই,এর পরের আর্টিকেল থাকছে কোন দেশে কে টার্গেট করে কোন নিশ নিয়ে কাজ করলে গুগল অ্যাডসেন্স থেকে সবচাইতে বেশী আয় করা যাবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy