ওয়ালটন প্রিমো জি৯ স্মার্টফোন এর কিছু ফিচার নিয়ে আলোচনা!

স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে সাধারণত দু’প্রকার ক্যামেরা সেন্সর হয়, সিমোস এবং বিএসআই। আর বিএসআই সেন্সর যুক্ত ক্যামেরার লো লাইট পারফর্মেন্স অনেক বেশি ভালো হয় সিমোস এর তুলনায়। আর এই প্রিমো জি৯ এর রিয়ার এবং ফ্রন্ট দু’পাশেই থাকছে বিএসআই ক্যামেরা সেন্সর। সুতরাং অন্ধকারে ছবি কেমন আসবে না আসবে এই বিষয়ে চিন্তা নাও করতে পারেন। রিয়ার এবং ফ্রন্ট দু’পাশেই আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ফেস ডিটেক্ট ফিচারটি থাকবে।

প্রিমো জি৯ এর ফ্রন্ট প্যানেলে পাবেন ৮ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা। রিয়ার ক্যামেরা ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও রেকর্ড করতে পারলেও ফ্রন্ট ক্যামেরা ৭২০ পিক্সেলে ভিডিও রেকর্ড করতে পারবে। আর এতে থাকছে বেশ কিছু ফিচারস, এগুলো হলঃ আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ফেস ডিটেক্ট, মিরর সেলফি, ডিজিটাল জুম, সেলফ টাইমার ইত্যাদি। রিয়ার ক্যামেরায় ফ্ল্যাশ থাকলেও ফ্রন্ট ক্যামেরায় কোনও ফ্ল্যাশ পাওয়া যাবেনা। রিয়ার এবং ফ্রন্ট দুটো ক্যামেরা দিয়েই বিউটি মোডে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে।

ফেসকিউট এর মাধ্যমে আপনি এই ফোনের রিয়ার এবং ফ্রন্ট ক্যামেরা দিয়ে আপনার বা অন্যকারো চেহারায় দারুন সব আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স লাইভ স্টিকার ইফেক্ট দিতে পারবেন। যা এই ক্যামেরার অন্যতম আকর্ষণীয় একটি ফিচার।

ইউজার ইন্টারফেস এবং অপারেটিং সিস্টেম

ডিভাইসটিতে আপনি পাচ্ছেন, লেটেস্ট অ্যান্ড্রয়েডের পাই এডিশন।

এর ইউজার ইন্টারফেস এর স্যাম্পল নিচে দেয়া হল। এর ইউজার ইন্টারফেস অনেকটা কাস্টমাইজেবল, আর আপনি এর ভেতর অনলাইন থিম ব্যবহার এর সুযোগ পাবেন।

হার্ডওয়্যার

প্রিমো জি৯ ফোনটিতে থাকছে করটেক্স-এ৫৫ অক্টাকোর ১.৬ গিগাহার্জ প্রসেসর। করটেক্স-এ৫৫ এর আগের একটি ভেরিয়েন্ট করটেক্স-এ৫৩ এর চাইতে ২০% বেশি কর্মদক্ষতা সম্পন্ন। এটি অক্টাকোর হওয়ার দরুন আপনারা এর সাথে পাচ্ছেন ৮টি কোর।

আর এই অক্টাকোর প্রসেসর এর সাথে এতে গ্রাফিক্স প্রসেসিং ইউনিট হিসেবে পাবেন পাওয়ারভিআর জিই৮৩২২ জিপিইউ। এই দামে এর একটি ভালোদিক হচ্ছে, এর ২ জিবি র‍্যাম। ইন্টারনাল স্টোরেজ হিসেবে এতে পাওয়া যাবে ১৬ জিবি জায়গা, যার ভেতর ১১ জিবি এর মতন ফাঁকা পাওয়া যাবে। তাছাড়াও ডিভাইসটিতে ৬৪ জিবি পর্যন্ত এসডি কার্ড সাপোর্ট করবে।

আর পাবজি লাভারদের দের জন্য যদি বাজেট একদম মিনিমাম হয়, তাদের জন্য এই প্রিমো জি৯ একটি পছন্দ হতে পারে। ফোনটির এনটুটু বেঞ্চমারক স্কোর এসেছে ৯৫২৪২। গিক বেঞ্চ অ্যাপে সিঙ্গেল কোরে ১৫০ এবং মাল্টি কোরে এসেছে ৭৯৮।

ফেস আনলক

ফোনটিতে কোন ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর পাওয়া যাবেনা, তবে এতে প্যাটার্ন, পিন, পাসওয়ার্ড সিকিউরিটির পাশাপাশি আরেকটি বিশেষ সিকিউরিটি অপশন পাওয়া যাবে, যা হচ্ছে ফেস লক। আর এর ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার সাথে ফেস লক সিকিউরিটি সুবিধাটি বেশ ভালই কাজ করে, এবং ফেসলকের মাধ্যমে ফোনের আনলকিং স্পিডও তুলনামূলক ফাস্ট।

স্পেশাল ফিচারগুলো

আমাদের সবার হয়ত ১০-১২ হাজার বা ওরকম বাজেট থাকে না স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে। তাদের জন্য নরমাল বাজেটে ভালো স্মার্টফোন বাছাই করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কেননা কম বাজেটে আমরা অনেকসময় এমন সব স্মার্টফোন কিনে ফেলি যাকে অনেকসময় আদর্শ স্মার্টফোন বলা যায়না। তবে ৬৩৯৯ টাকায় সব দিক দিয়ে আমার কাছে প্রিমো জি৯ স্মার্টফোনটি চলনসই। আর এই বাজেটে আপনাদের যদি স্মার্টফোন কিনতে হয়, তবে একবার জি৯ স্মার্টফোনটি দেখতে পারেন।

You might also like
Leave A Reply

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy