রাউটার কিনবেন?রাউটার কেনার আগে অবশ্যই পড়ুন।

আপনি রাউটার নিয়ে এই লেখা পড়তে এসেছেন তার মানে আমি ধরে নিচ্ছি আপনি রাউটার এর কার্যক্রম সম্পর্কে বেসিক সব কিছু জানেন।রাউটার কি?রাউটার কি কাজে ব্যাবহার করা হয় আপনি অবশ্যই জানেন।এবং আপনার এই পোস্ট পড়ার উদ্দেশ্য হল আপনি একটি রাউটার কিনতে চাচ্ছেন।কিন্তু বুঝতে পারছেন না,রাউটার কেনার আগে কোন বিষয় গুলতে নজর দেওয়া উচিত।আমার এই ধারনা যদি সঠিক হয়,তবেই এই লেখার পরের অংশ আপনার জন্য।

আপনি নতুন নেটওয়ার্ক সেটআপ দেন আর আপনার পুরাতন নেটওয়ার্ক আপডেট করেন না কেন আপনার রাউটার লাগবেই।আর রাউটার কিনতে গেলেই আমরা প্রায় ই অনেক ভুল করে থাকি রাউটার নির্বাচন করার ক্ষেত্রে।আমাদের এই আজকের এই আর্টিকেল পড়ার পর আপনি আর ভুল করবেন না বলে আমার বিশ্বাস।

আমরা যখন নতুন রাউটার কিনতে যাব অবশ্যই আমাদের নিম্নক্ত বিষয়গুলতে নজর রাখতে হবে।যথাঃ রাউটারের স্ট্যান্ডার্ড সম্পর্কে অবগত হওয়া।আপনি যে রাউটার কিনবেন সেটি সিঙ্গেল ব্র্যান্ড নাকি ডাবল ব্র্যান্ড এটা জেনে নেওয়া।লাইফস্পান সম্পর্কে অবগত হওয়া এবং নেটওয়ার্ক রেঞ্জ সম্পর্কে ধারনা নেওয়া।

রাউটার কেনার সময় রাউটার এর স্ট্যান্ডার্ড এর দিকে নজর দিতে হবে।আপনি আপনার অফিসে ব্যাবহার করে আর বাসাতেই ব্যাবহার করেন 802.11ac স্ট্যান্ডার্ড এর রাউটার গুলো সবচাইতে ভালো।এটি এর পূর্বের স্ট্যান্ডার্ড এর চাইতে ভালো পারফরমান্স দিয়ে থাকে।ধরেন আপনার আইএসপি আপনাকে ১০ এমবি এর স্পীড ইন্টারনেট সংযোগ দিয়েছে।এরপরে আপনি কাঙ্কখিত নেট স্পিড পাচ্ছেন না।এর কারন কি জানেন?এর কারন হল আপনি পুরাতন স্ট্যান্ডার্ড এর রাউটার ব্যাবহার করছেন।সুতরাং রাউটার কেনার সময় অবশ্যই আমাদে এই বিষয় মাথায় রাখতে হবে।

রাউটার সাধারন্ত দুই রকমের ফিকইন্সি তে কাজ করে একটি হল 2.4 GHz এবং অপরটি হল 5 GHz।সিঙ্গেল ব্র্যান্ড এর রাউটার যেকোনো একটি ফিকইন্সি সাপোর্ট করে।অপরদিকে ডুয়াল ব্যান্ড ব্যান্ডের রাউটার সমূহ 2.4 GHz এবং 5 GHz উভয় সাপোর্ট করে।এবং আপনি চাইলেই দুটি ব্র্যান্ড কে একই সাথে ব্যাবহার করতে পারবেন।

যেহেতু বাসায় ব্যাবহার করলে নেটওয়ার্ক হার্ডওয়্যার এর উপর অনেক বেশী চাপ পরে।কারন আমরা বাসায় ব্যাবহার করলে একসাথে অনেক ডিভাইস সংযোগ করি ফলে আমাদের রাউটার দুর্বল হয়ে পরে।আপনি যদি দেখেন আপনার ডিভাইস গুলো বার বার রাউটার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে তাহলে বুঝবেন আপনার রাউটার পরিবর্তন করার সময় এসেছে।সুতরাং আপনি যখন রাউটার কিনবেন অবশ্যই লাইফস্পান এর দিকে নজর রাখবেন।

আপনার রাউটার কতদূর পর্যন্ত নেটওয়ার্ক বিস্তিত করতে পারে তা আপনার রাউটার এর নেটওয়ার্ক রেঞ্জ এর উপর নির্ভর করে।আর রাউটার আপনার বাসার খোলা জায়গায় বসানো উচিত।তবে এটা যেন আপনার বাসার জানালার কাছে না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।কারন এটা আপনার রাউটার এর সিগন্যাল লিক হবার সম্ভবনা প্রবল।আপনার বাসা যদি অনেক বড় হয়ে থাকে তাহলে আপনার বেশী নেটওয়ার্ক রেঞ্জ এমন রাউটার কেন উচিত।আর বাসা ছোট হলে কম রেঞ্জ এর হলেও চলবে।এটা সম্পূর্ণ আপনার বাসা অথবা অফিসের আয়তন এর উপর নির্ভর করে।আপনার বাসা যদি অনেক বড় হয় আর আপনার রাউটার এর নেটওয়ার্ক রেঞ্জ কম হয় তাহলে আপনার ডিভাইস আপনার রাউটার এর সাথে কানেক্ট হতে অনেক সময় নেয় অথবা অনেক সময় কানেক্ট ই হয় না।সুতরাং রাউটার এর নেটওয়ার্ক সম্পকে ভালো ভাবে জেনে নিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.