চলন্ত বাসে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা: চালক শহীদ মিয়া গ্রেপ্তার

চলন্তবাসে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে শহিদ মিয়া নামের একজন বাস চালককে গ্রেফতার করছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।আর এই ঘটনা ঘটেছে সুনামগঞ্জ এর দিরাইয়ে।আজকে শনিবার সকাল ৬ টা সময় ঢাকা থেকে বাসে করে সুন্মাগঞ্জে পৌঁছালে শহিদ মিয়াকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সুনামগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মহোদয়  মো. মিজানুর রহমান জানান,বাস চালক শহিদ মিয়াকে ভিবিন্ন ধরনের কৌশল ব্যাবহার করে সিআইডি পুলিশ ঢাকা থেকে সুনামগঞ্জে নিয়ে আসে এবং শনিবার সকাল ৬ টায় তাকে গ্রেফতার করে সিআইডি পুলিশ।তবে এখনও বাস চালক শহিদ মিয়াকে থানা পুলিশ এর কাছে হস্তান্তর করা হয়নি।একই ঘটনায় ২৭ ডিসেম্বর রাতে একই বাসের হেল্পার রশিদ আহমদকে ছাতকের বুরাইরগাঁও থেকে আটক করে পুলিশ।

ঘটনার বিবরনে জানা যায়, গত ২৬ ডিসেম্বর বিকালে সিলেটের লামাকাজী থেকে সুনামগঞ্জ এর দিরাইয়ে যাচ্ছিলেন উক্ত কলেজছাত্রী।সুনামগঞ্জ এর দিরাই পৌরসভার সুজানগর গ্রামের পাশে এসে বাসের অন্য যাত্রীরা নেমে গেলে বাসে একদম একা হয়ে যান ওই কলেজছাত্রী।বাসে সেই কলেজছাত্রীকে একা পেয়ে বাস  চালক শহিদ মিয়া এবং হেলপার রশিদ আহমদ কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করলে নিজের সম্ভ্রম বাঁচাতে ওই কলেজছাত্রী চলন্ত বাস থেকে লাফ দেয়।স্থানীয়রা কলেজ ছাত্রীকে রাস্তার পাশে থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দিরাই হসপিটালে ভর্তি করেন।মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়ার কারনে কর্তব্যরত ডাক্তার উক্ত কলেজ ছাত্রীকে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন।ঘটনার খবর পাওয়ার পর স্থানীয়রা এবং উক্ত কলেজছাত্রীর স্বজনরা রাতে দিরাই থানার সামনে বিক্ষোভ শুরু করে এবং পুলিশ সেই বাসটি জব্দ করে।

ঘটনার দিন রাতেই কলেজছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে বাসের চালক শহীদ মিয়া ও হেলপার রশিদ আহমদকে আসামি করে দিরাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন।কলেজছাত্রী এখনও সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রয়েছেন।

তথ্য সুত্রঃ সমকাল অনলাইন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *