এন্ড্রয়েড নাকি আইওএস?কোনটা ভাল আপনার জন্য?

এন্ড্রয়েড নাকি আইওএস?এই প্রশ্ন মোবাইল বেবহারকারিরা প্রায় ই জিজ্ঞাসা করে থাকে।অ্যান্ড্রয়েড আর আইফোন নিয়ে আমাদের আগ্রহের যেন শেষ নেই।আমাদের মনে যে প্রশ্নটি ঘুরে ফিরে আসে তা হল কোন ফোন আমাদের জন্য সেরা?এন্ড্রয়েড নাকি আইওএস?তাই আমাদের আজকের আর্টিকেল এর বিষয়বস্তু হল,এন্ড্রয়েড নাকি আইওএস?কোনটা ভাল আপনার জন্য?তাহলে চলুন কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক।

এন্ড্রয়েড নাকি আইওএস কোনটি আমাদের জন্য ভাল এবং কোনটির চাইতে কোনটি সেরা এটা জানতে হলে আমাদের এন্ড্রয়েড এবং আইওএস এর মধ্য পার্থক্য জানতে হবে।এন্ড্রয়েড এবং আইওএস এর মধ্য পার্থক্য গুলো নিম্নরুপঃ

হোমস্কিনের মত আপনি আপনার অ্যান্ডরিড ফোনে তৃতীয় পক্ষের অ্যাপ ব্যাবহার করের আপনার মোবাইল ফোন এর হোমস্ক্রিন কে আরও সুন্দর করে তুলতে পারবেন কিন্তু আইফোন এই সুবিধা নাই।

অ্যান্ড্রয়েড ফোনে আপনি আপনার হোমস্ক্রিন থেকে নোটিফিকেশন,ব্রাইটনেস,ওয়াই-ফাই সহ অনেক সেটিংস পরিবর্তন করতে পারবেন কিনতি আইওএস এ এই সুবিধা গুলো পাবেন না।

আইওএস এ আপনি কুইক সেটিংস অপশনে ডেডিকেটেড মিউজিক প্লেব্যাক করার সুবিধা পাবেন।কিন্তু আইওএস এর এই সেটিং থেকে আপনি ডেডিকেটেড মিউজিক প্লেব্যাক কাস্টমাইজেশন করার সুবধা পাবেন না।কারন এই কাস্টমাইজেশন করার সুবিধা আইওএস যুক্তই করে নি।

আপনি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে আপনার নিজের তৈরি করা অ্যাপ ইন্সটল করতে এবং ব্যাবহার করতে পারবেন।কিন্তু আইওএস এ আপনি এই সুবিধা পাবেন না,আইওএস এ আপনি যদি আপনার নিজের তৈরি করা কোন অ্যাপ ইন্সটল এবং ব্যাবহার করতে চান তাহলে আপনার অবশ্যই একটি পেইড ডেভেলপার অ্যাকাউন্ট চালু করতে হবে এবং আপনার তৈরি করা অ্যাপ টি অ্যাপ ষ্টোর এর মাধ্যমে আপনার আইওএস ফোনে ইন্সটল করতে হবে।

এতক্ষণ আমরা অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস এর মধ্য পার্থক্য গুলো জানলাম।এবার আমরা জানবো অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস এর ভেতর কি কি মিল আছে।বলে রাখা ভাল যে অ্যান্ড্রয়েড আইওএস এর অনেক কিছুর মিল আছে আমরা সেগুলোর ভেতর সামান্য কিছু মিল এর কথা জানবো।

অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস এর সফটওয়্যার এক্সপেরিয়েন্সের এর দিক দিয়ে এই ২ টা ফোনে আপনি একই রকম সুবিধা পাবেন।অ্যান্ড্রয়েড এর সেভেন ভার্সনে আপনাকে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট যুক্ত করা হয়েছে,আর এই অ্যাসিস্ট্যান্ট আপনার মোবাইল ফোন ব্যাবহারের অভিজ্ঞতাই পরিবর্তন করে দিতে সক্ষম।এছারাও অ্যান্ড্রয়েড এর সর্বশেষ আপডেটে এর দুর্বোধ্য সেটিং গুলো খুবই সহজ করে দেওয়া হয়েছে।যা আপনি আপনার মোবাইল ফোনের হোমস্ক্রিন থেকেই পরিবর্তন করতে পারবেন।

এই পোস্ট পড়ার পর আশা করি আপনার মনে এই প্রশ্ন আর কখনই আসবে না যে,এন্ড্রয়েড নাকি আইওএস?কোনটি আমার জন্য ভাল?তবে আমার কাছে আইওএস এর চাইতে এন্ড্রয়েড ই সব দিক দিয়ে সেরা মনে হয়।আশা করছি আপনার কাছেও আইওএস এর চাইতে এন্ড্রয়েড ই সব দিক দিয়ে সেরা মনে হবে।

Leave a Comment