ভিপিএন কি?ভিপিএন কিভাবে কাজ করে?জেনে নিন বিস্তারিত

ভিপিএন এর পূর্ণরুপ হল ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক।আমরা ভিপিএন ব্যাবহার করে আমাদের পরিচয় গোপন রেখে (  পরিচয় বললে ভুল হবে মূলত আপনার পার্সোনাল তথ্য গুলো গোপন রাখা হয়) যেকোনো ওয়েবসাইটে প্রবেশ এর অনুমতি দেয়।এমন অনেক ওয়েবসাইট আছে যে ওয়েবসাইট গুলো আপনি অনেক সময় কিছু বিধি নিষেধ থাকার কারনে সরাসরি তাদের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারেন না।কিন্তু আপনি যদি ভিপিএন ব্যাবহার করেন খুব সহজেই সেই সব ওয়েবসাইটে কোন রকম বাধা ছাড়া প্রবেশ করতে পারেন।আমরা আজকে এই লেখার মাধ্যমে জানবো আমরা যখন ভিপিএন ব্যাবহার করি তখন এই ভিপিএন কিভাবে কাজ করে।

বর্তমান সময়ে দিন দিন ভিপিএন এর ব্যাবহার বেড়েই চলেছে,কারন অনলাইনে এখন আর আগের মত নিজের পার্সোনাল ডাটা শেয়ার করতে কেউ ইজি ফিল করে না।কারন বর্তমান সময়ে অনলাইনে ডাটা চুরির হার আসংখা জনক ভাবে বেড়েছে।এছারা কিছু কিছু দরকারি ওয়েবসাইট বিভিন্ন দেশ থেকে লগ ইন করা যায় না।সেই ক্ষেত্রে ভিপিএন আমাদের অনেক উপকার করে।

যখন আমরা ভিপিএন ব্যাবহার করে কোন নেটওয়ার্ক এর সাথে জিক্ত হই তখন কেউ চাইলেও আমাদের পরিচয় খুঁজে বের করতে পারেনা।কারন ভিপিএন চালু করার পর আপনার রিয়াল আইপি এড্রেস পরিবর্তন হয়ে অন্য একটি দেশের আইপি শো করে ফলে আমাদের পার্সোনাল ডাটা কেউ চুরি করতে পারে না।এছারা ভিপিএন চালু করে আমরা দেশ ব্লক ওয়েবসাইট গুলোতে প্রবেশ করতে পারি।আপনি যদি একজন সাধারন বেভারকারি হয়ে থাকেন তাহলে আপনি একটি ফ্রী ভিপিএন ব্যাবহার করে ব্লক ওয়েবসাইট ভিসিট করতে পারবেন।

আপনি যদি চান যে আপনার নিজের কম্পিউটার এর আইপি আপনি কাউকে দেখতে দিবেন না অর্থাৎ আপনি যখন কোন ওয়েবসাইট ভিসিট করবে তখন যেন তাঁরা আপনার আসল পরিচয় না পায় তাহলে আপনার অবশ্যই উচিত হবে ভিপিএন ব্যাবহার করা।আর এই কাজটি ভিপিএন ব্যাবহার করে খুব সহজেই আপনি করতে পারবেন।প্রিমিয়াম ভিপিএন আপনার ইন্টারনেট স্পিড বাড়িয়ে দিতে পারে অপরদিকে ফ্রী ভিপিএন গুলো আমাদের ইন্টারনেট স্পিড কমিয়ে দেয়।সুতরাং ভিপিএন ব্যাবহার করলে প্রিমিয়াম ই ব্যাবহার করা উচিত।

এই পর্যন্ত পড়ে আপনি কি মনে মনে ভিপিএন দিয়ে কোন অসৎ কাজ করার কথা ভাবছেন?তাহলে আপনি ভুল ভাবছেন!কারন যেকোনো আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী প্রতিষ্ঠান চাইলেই ভিপিএন সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান এর সাথে যোগাযোগ করে খুব সহজেই আপনার পরিচয় বের করে ফেলতে পারবে।আপনি যদি সিকুয়ার নেটওয়ার্ক ব্যাবহার করে ইন্টারনেট ব্যাবহার করেন তাহলে আপনার ভিপিএন ব্যাবহার করার কোন দরকার নাই।কিন্তু আপনি যদি পাব্লিক নেটওয়ার্ক ব্যাবহার করে ইন্টারনেট ব্যাবহার করেন তাহলে অবশ্যই আপনি ভিপিএন ব্যাবহার করতে পারেন।কারন যেই নেটওয়ার্ক অনেক লোক একসাথে ব্যাবহার করে তা কখনই নিরাপদ না।সম্ভব হলে আপনি সবসময় ভিপিএন ব্যাবহার করে ইন্টারনেট ব্যাবহার করুন।আশা করি আপনি বুঝতে পেড়েছেন ভিপিএন কি?ভিপিএন কিভাবে কাজ করে?কেন আমাদের ভিপিএন ব্যাবহার করা উচিত।এর পরেও যদি ভিপিএন সম্পর্কিত কোন জিজ্ঞাসা থেকে থাকে তাহলে এই পোস্ট এর শেষে কমেন্ট করে জানান।আর ভিপিএন নিয়ে যদি আরও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আপনার কাছে থাকে তাহলে আমাদের তা জানান আমরা আপনার তথ্যকে এই আর্টিকেলে অ্যাড করে দিব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *