ইউটিউবিং শুরু করার আগে আপনাকে যে ক্যামেরা কেনা উচিত

হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন আশা করি আমাদের সাথে ভালই আছেন। আজকে আমি আপনাদের মাঝে নতুন একটি আর্টিকেল নিয়ে হাজির হলাম। প্রতিনিয়ত আমি এই ব্লগে ইউটিউব ক্যামেরা শুরু করার আগে ক্যামেরা নিয়ে আলোচনা করতেছ। আশা করি আপনাদের ভালো লাগবে আমি আপনাদের জন্য ভালো পোস্টগুলো প্রতিনিয়ত নিয়ে আসি। আপনাদের প্রত্যেকটা পোস্ট কাজের। নতুন অবস্থাতে আমরা অনেকটা ক্যামেরা কেনার জন্য ভালো দিক নির্দেশনা খুঁজে পাইনা। অথবা বাজেটের মধ্যে ক্যামেরা গুলো খুজে পাইনা। বা কোন কোনটাতে ইউটিউব এর কাজ চালানো সম্ভব বা কেমন ক্যামেরাগুলো কিন্তু হবে আমাদের কাজের জন্য এরকম সমস্যার জন্য অনেক বিভ্রান্ত হয়ে পড়ি। তাই আমি ঠিক করলাম যে এরকম বিষয় নিয়ে একটা আর্টিকেল লিখে হয়তো আপনাদের অনেকেরই উপকারে আস। আমার হয়তো অনেকেই এরকম আর্টিকেল এর আশায় বসে আছেন।

তো আজকে আমি আলোচনা করবো বেশ কিছু ক্যামেরা নিয়ে যা আপনাদের লো বাজেটের মধ্যে কিনতে পারব। এই ক্যামেরাগুলো কম দামের মধ্যে ভালো মানের। আপনি চাইলে আপনি বেশ কিছু ডিএসএলআর ক্যামেরা কিনতে পারেন। যে আপনাদের ইউটিউবে কাজের জন্য কোনটা বেস্ট হবে। আমি এখন বিস্তারিত বলছি মডেল নিয়ে। এবং কিছু সময় নিয়ে আর কি পড়তে থাকুন।আজকে আমি আপনাদের মাঝে বেশকিছু ক্যামেরা নিয়ে আলোচনা করবো না। আমি আলোচনা করব এমন একটি ক্যামেরা নিয়ে যেটি অনেক কম দামে এবং ভাল ফিচার নিয়ে ক্যানন একটি ক্যামেরা বাজারে এনেছে। এটাই হয়তো কম দামি ক্যামেরা বা কম দামের মধ্যে ভালো ফিচার ক্যামেরা Canon eos1200d ক্যামেরা।

এই ক্যামেরার লেন্স হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ef-s মিলিমিটার লেন্স। এবং এই ক্যামেরার লেন্স হিসেবে বা লেন্স সহ লেন্স কিনতে গেলে আপনাকে ২৯ হাজার টাকা গুনতে হবে। যা বাংলাদেশের মধ্যে সবচেয়ে সবচাইতে কম দামি ক্যামেরা ক্যানন এর। অনেকেই ক্যানন ডিএসএলআর ক্যামেরা কেনার জন্য ভাবছেন। যে আপনাদের অনেকে অনেক ক্যামেরা কিনতে বলে। সে ক্ষেত্রে ৫০ থেকে ৭০০০০ হাজার টাকার মতো পড়ে যায়।তো অনেকের পক্ষে এত বেশি দাম দিয়ে ক্যামেরা কেনা সম্ভব না। তাই কম দামের মধ্যে অনেকে ক্যামেরা খোঁজার চেষ্টা করেন। তো সে ক্ষেত্রে আমি এই ক্যামেরাটি কিনতে বলব।

এই ২৯ হাজার টাকার ক্যামেরা দিয়ে আপনি ইউটিউবে ভিডিও এবং এইচডি এইচডি ফটো ক্যাপচার করতে পারবেন। এবং ক্যামেরা মেগাপিক্সেল হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ১৮ মেগাপিক্সেলের। এবং এই ক্যামেরাটিতে ডিসপ্লে হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ৩ ইঞ্চি এলসিডি ডিসপ্লে। এবং এক্সটারনাল আপনি এই ক্যামেরাটিতে এসডি কার্ড ব্যবহার করে কাজ চালাতে পারবেন। অতএব, আমি বলব এই ক্যামেরাটি অনেক বাজেট একটা ক্যামেরা যা অনেকে হয়তো এই ক্যামেরাটি খুজতেছেন।আশাকরি আমার আর্টিকেলটি ভালো লেগেছে এরকম আরো প্রতিনিয়ত আর্টিকেল পেতে এই ওয়েবসাইট ভিজিট করুন এবং প্রতিনিয়ত আমাদের সাথে থাকুন আর্টিকেল আছে যদি ভালো লাগে আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন।

Leave a Comment