ল্যাপটপের ব্যাটারি ড্যামেজ হওয়া থেকে যেভাবে রক্ষা করবেন!

আসসালামুয়ালাইকুম। আশা করি সবাই ভাল আছেন। আমিও আপনাদের দোয়ায় ভালই আছি। প্রতিবারের মত ধারাবাহিক আর্টিকেল নিয়ে এখানে আজকে আমি আপনাদের মাঝে উপস্থিত হয়েছি। আশাকরি আমাদের প্রত্যেকটা আর্টিকেল আপনাদের জন্য খুব আর্জেন্ট লাগবে। আর কোন বিষয় নিয়ে আপনাদের প্রয়োজন হলে। আমাকে আপনারা জানাতে পারেন, আমি সেই বিষয় নিয়ে আপনাদের জন্য আর্টিকেল রেডি করে নিয়ে আসবো। কেননা আপনাদের সাহায্য করার উদ্দেশ্যে আমার এই ব্লগটা তৈরি করা হয়েছে। আপনাদের সাহায্য করার জন্য প্রয়োজন মত আমি সব সময় থাকবো। তো এসব কথা আর বাড়িয়ে লাভ নেই। আমার আজকে আর্টিকেলটি হলো ল্যাপটপ এর ব্যাটারি ড্যামেজ হওয়া থেকে কিভাবে রক্ষা করা যায়।

আমরা যারা অনলাইনে সাথে কানেক্ট আছি। তারা হয়তো ডেক্সটপ এর পাশাপাশি প্রত্যেক জন এই ল্যাপটপ ব্যবহার করে থাকি। আবার কে গো আছে শুধু ল্যাপটপের ওপর নির্ভরশীল করেই আমরা অনলাইনে কাজ করে থাকি। আমাদের দেশের ইলেকট্রিসিটি যে হাল তাতে ল্যাপটপে ভালো পরিমাণে একটু ব্যাটারি ব্যাকআপ না দিলে হয় না। তাই এই ব্যাটারির চার্জ বেশিক্ষণ ধরে পাওয়া অত্যন্ত দরকারি। আমরা কিছু কিছু কারণে নিজেদের সচেতন না থাকায় আমরা ইচ্ছাকৃতভাবে ল্যাপটপের ব্যাটারি ডেমেজ করে ফেলি। আর সেটা হয়ে থাকে আমাদের কোন অজান্তে কারণে। আর সেই কারণ গুলো নিয়ে আজকে আমি বলব। যাতে করে এই ভুলগুলি পরবর্তী সময়ে আর যেন না হয়। তাতে করে আমাদের ল্যাপটপের ব্যাটারি সর্বদা ভালো ব্যাটারি ব্যাকআপ দিয়ে থাকবে।

আমাদের এই ব্যাটারি নষ্ট হওয়ার জন্য সর্বপ্রথম কারণ হচ্ছে। ঠিকমতো চার্জিং না করা, আমরা ল্যাপটপ চার্জ করে থাকি। আর সেটা ১০০% চার্জ শেষ না হওয়া পর্যন্ত চার্জ দিতেই থাকি। আবার ১০০% চার্জ হওয়ার পরেও প্লাগ থেকে চার্জার আনপ্লাগ করছি না। এটি ব্যাটারি ক্ষতি হওয়ার অন্যতম একটি কারণ। আর আমরা অনেকেই ল্যাপটপ টিপতে টিপতে একদম শাটডাউন করে ফেলি। এটিও ব্যাটারির ক্ষতি হওয়ার অন্যতম একটি কারণ। তাই আমরা ল্যাপটপ সর্বোচ্চ ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ পর্যন্ত চার্জ করব। কেননা আমাদের বর্তমান সময়ের ডিভাইসগুলোতে ব্যবহার করা হয়ে থাকে, লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি। যে ব্যাটারি গুলোকে ১০০% চার্জ করলে ব্যাটারি বেকাপ টাইম আস্তে আস্তে কমে যেতে শুরু করবে। আর যদি আপনি ৮০ থেকে ৯০ এর ভিতরে রাখেন তাহলে আপনি অনেক বেশি ব্যাটারি ব্যাকআপ পাবেন। এবং আপনার ব্যাটারির আয়ু দিন দিন আরও বাড়তে পারে। আর ব্যাটারি চার্জিং কমতে কমতে ১৫ থেকে ২০ শতাংশ আসলে ওখানে আপনি চার্জ দিতে শুরু করবেন। এর পদ্ধতি গুলো অনুসরন করলে আপনার ব্যাটারির আয়ু অবশ্যই বাড়বে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy