আপনি জানেন কি কিভাবে একটি ওয়েবসাইটের অন পেজ এসইও করতে হয়

এসইও এমন একটি বিশেষ কৌশল যার মাধ্যমে কোন একটি ওয়েবসাইটকে কোন একটি সার্চ কী-ওয়ার্ড কে ইউজার এর সামনে সার্চ ফলাফলে সামনের দিকে নিয়ে আসার চেষ্টা করা হয়।অর্থাৎ কোন একটি ওয়েবসাইট কে এক বা একাধিক কী-ওয়ার্ড এর জন্য সার্চ ইঞ্জিন এর ফলাফলে সামনের দিকে নিয়ে আসার জন্য যে বৃহৎ কৌশল অবলম্বন করা হয় তাঁকে এসইও বলা হয়।আজকে আমরা এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে জানবো কিভাবে একটি ওয়েবসাইট এর অন পেজ এসইও করতে হয়।যারা নতুন ওয়েবসাইট চালু করছে আমার এই লেখা তাদের অনেক উপকারে লাগবে বলে আশাবাদি।কারন নতুন ওয়েবসাইট মালিকেরা বুঝতে পারেনা অন পেজ এসইও এর জন্য কন কাজের পর কন কাজটি শুরু করতে হয়।আমি এই আর্টিকেলে পর্যায়ক্রমে সাজিয়ে লেখার চেষ্টা করব।আপনি যদি নতুন ওয়েবসাইট চালু করে থাকেন তাহলে অবশ্যই এই লেখা শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

প্রথমেই আমরা জানবো সার্চ ইঙ্গিন কি?কিভাবে এটি কাজ করে?সার্চ ইঞ্জিন হল যেকোনো তথ্য অথবা ছবি খুঁজে বের করার সব চাইতে সহজ মাধ্যম।আপনি শুধু সার্চ ইঙ্গিন এর সার্চ বক্সে আপনার চাহিদা মত ওয়ার্ড লিখে সার্চ দিবেন।আর সার্চ ইঙ্গিন লক্ষ লক্ষ সার্চ ফলাফল আপনার সামনে নিয়ে আসবে।উদাহরন সরুপ আপনি যদি সার্চ ইঙ্গিনে SSC Exam Result লিখে সার্চ দেন তাহলে আপনার সামনে প্রথমে যে ওয়েবসাইট আসবে সেটি হল আমাদের সরকারী শিক্ষা বোর্ড এর ওয়েবসাইট।আপনি কি কখনও চিন্তা করেছেন কিভাবে এটি এক নাম্বারে আসল?এই প্রশ্নের উত্তর আপনি এই পোস্ট সম্পূর্ণ পড়ার পর পেয়ে যাবেন।কারন এই পোস্টে আমরা শিখব কিভাবে একটি সাইট এর অন পেজ এসইও করতে হয়।আর এই অন পেজ এসইও আমাদের ওয়েবসাইট কে সার্চ ফলাফলে সামনের দিকে আনতে সাহায্য করে।\

অন পেজ এসইও করতে গেলে প্রথমে আপনাকে ভালো ভাবে কী-ওয়ার্ড রি-সার্চ করতে হবে।আচ্ছা প্রথমে জানা দরকার কী-ওয়ার্ড কি?আমরা যখন সার্চ ইঙ্গিনে কোন ওয়ার্ড লিখে সার্চ দেয় তা কী-ওয়ার্ড।আপনি যদি সঠিক ভাবে কী-ওয়ার্ড নির্বাচন করতে পারেন তাহলে অন পেজ এসইও এর কাজ আপনার জন্য অনেক সহজ হয়ে যাবে।সুতরাং এই বিষয়ে অনেক সতর্কতার সাথে কী-ওয়ার্ড নির্বাচন করতে হবে।

এর পর আপনি যখন আর্টিকেল লিখবেন তখন আপনাকে কিওয়ার্ড ডেনসিটি ঠিকভাবে রেখে আর্টিকেল লিখতে হবে।কারন আপনি চাইলেও আপনার আর্টিকেল এর যেখানে সেখানে কী-ওয়ার্ড দিতে পারবেন না।ধরুন আপনি একটি আর্টিকেল লিখলেন যার ওয়ার্ড সংখ্যা ১০০ এবং এই আর্টিকেলে আপনি কী-ওয়ার্ড ব্যাবহার করলেন ৩ বার তাহলে আপনার কিওয়ার্ড ডেনসিটি হবে ৩%,যদি অনেক এক্সপার্ট বলে থাকেন ২.৫% এর বেশি ব্যাবহার করা উচিত নয় এবং জত্র-তত্র কী-ওয়ার্ড ব্যাবহার থেকে বিরত থাকা উচিত।

আপনার ওয়েবসাইটে অবশ্যই মেটা ডেসক্রিপশন ট্যাগ যুক্ত করতে হবে।মেটা ডেসক্রিপশন ট্যাগ আপনার ওয়েবসাইট এর থিমের <head> ট্যাগ এর ভেতরে সংযুক্ত করতে হয়।এখানে আপনার ওয়েবসাইট এর সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বর্ণনা লিখতে হবে।যখন কোন ব্যাবহারকারী সার্চ ইঙ্গিনে সেয়ারহ করে আপনার ওয়েবসাইট এর লিংক পাবে তখন সেখানে এই মেটা ডেসক্রিপশন ট্যাগ দেখাবে।এটি ভিসিটর কে আপ্নাএ ওয়েবসাইট সম্পর্কে প্রথমিক ধারনা দিয়ে থাকে।

এর পর আপনাকে আপনার ওয়েবসাইট এর ইউআরএল অপটিমাইজ করতে হবে।ওয়েবসাইট এর ইউআরএল অবশ্যই ইউজার ফ্রেন্ডলি রাখতে হবে।কারন এটা আপনার ওয়েবসাইট রাঙ্কিং এ ভূমিকা রাখে এবং ইউজার কে আপনার সেই লিংক এর আর্টিকেল সম্পর্কে ধারনা দেয়।রোবট টেক্সট অ্যাড করতে হবে,রোবট টেক্সট এর মাধ্যমে সার্চ ইঞ্জিন কে জানাতে হবে আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর কোন পেজ গুলো ইনডেক্স করাতে চান আর কোন গুলো করাতে চান না।আপনি যে লিংক গুলোর অনুমতি এই রোবট টেক্সটে দিবেন সার্চ ইঞ্জিন শুধু মাত্র সেই লিংকগুলো ইনডেক্স করতে পারবে।

এছারাও,আপনার ওয়েবসাইটে সাইট ম্যাপ,ইমেজ অলটার ট্যাগ,ফেভিকন,লোগো,ইন্টারনাল লিংক তৈরি করতে হবে।ওয়েবসাইটে কোন ব্রোকেন লিংক,ডেড লিংক,ফ্লাশ ফাইল রাখা যাবে না(ফ্লাশ ফাইল রাখতে পারবেন তবে না রাখাটাই ভালো)।এবং সাইট এর নির্দিষ্ট জায়গা গুলোতে h1,h2,h3,h4,h5,h6 এই ট্যাগ গুলো ব্যাবহার করতে হবে।এবং আপনার ওয়েবসাইট এর হোম পেজ যতটা সম্ভব ছোট রাখতে হবে।এই কাজ গুলো সঠিকভাবে করতে পারলে নির্দিষ্ট কী-ওয়ার্ড এর সার্চ ফলাফলে আমাদের ওয়েবসাইট প্রথম দিকে আসবে।

You might also like
Leave A Reply

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy