ল্যাপটপ কিনবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন?কেনার আগে এই টিপস আপনার জানা উচিত

ল্যাপটপ কি?এটা কি কাজে লাগে এটা নতুন করে বলার দরকার নাই।কারন ল্যাপটপ কম্পিউটার এর ই একটি রুপ।আর এখন যে কারও একটি কম্পিউটার বিভিন্ন কাজ করতে লাগেই।বর্তমান সময় এমন হয়েছে যে,প্রায় সব কিছু ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে গেছে।আর ইন্টারনেট নির্ভর কাজ করতে গেলে অবশ্যই আপনার কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ লাগবেই।আপনি হয়ত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আপনি একটি ল্যাপটপ কিনবেন।হয়ত আপনি এত দিন ডেক্সটপ কম্পিউটার ব্যাবহার করেছেন অথবা কখনও কম্পিউটার ব্যাবহারই করে নি।সুতরাং আপনার জন্য ল্যাপটপ পছন্দ করাটা অনেক কষ্টকর একটা ব্যাপার।আমরা আজকের এই আর্টিকেলে শিখব ল্যাপটপ কেনার আগে কি কি দেখা উচিত বা ল্যাপটপ কিনতে কোন বিষয়গুলোর প্রতি নজর দেওয়া উচিত।আপনি জসি ল্যাপটপ কিনতে চান তাহলে অবশ্যই এই লেখা শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

বাজারে অনেক রকমের ল্যাপটপ কিনতে পাওয়া যায়।তবে কোন ল্যাপটপ আপনার কাজের জন্য উপযুক্ত এটা বুঝে উঠা অনেক কষ্টসাধ্য একটি ব্যাপার।আপনি হয়ত এমন ল্যাপটপ কিনলেন যা কিনা দেখতে অনেক আকর্ষণীয় কিন্তু গতি!একদম কচ্ছপ।আবার কোনটা আছে দেখতে একদম মোটা কিন্তু গতি অনেক ভালো।কিন্তু আপনি হয়ত চাচ্ছেন এমন একটি ল্যাপটপ আপনার দরকার যেটা দেখতে অনেক সুন্দর আর গতিও অনেক ভালো।আপনার যদি অনেক টাকা থাকে তাহলে আপার যা ইচ্ছা হয় কিনে ফেলুন আর ফেলে রাখেন।কিন্তু যারা চায় তাদের একটা ল্যাপটপ দরকার কাজ করার জন্য এবং সে যে পরিমান টাকা দিয়ে কিনবে তাদের প্রতিটা টাকা যেন বিফলে না যায়,মূলত তাদের জন্যই আমার আজকের এই লেখা।দামের দিকে বিবেচনা করে ল্যাপটপ কে তিন ভাগে ভাগ করা যায়।লো বাজেট ল্যাপটপ,মিড বাজেট ল্যাপটপ,হাই বাজেট ল্যাপটপ।

লো বাজেট ল্যাপটপ এর দাম মূলত ২০-২৫ হাজার এর মধ্যে হয়।অনেকেই এই বাজেটের ল্যাপটপ কে ল্যাপটপ মনেই করে না।আসলেও এই বাজেটের ল্যাপটপ থেকে বেশী আউটপুট আশা করাটাও বোকামি।এই ল্যাপটপগুলো মূলত তারাই কিনে থাকে যাদের একটি ল্যাপটপ লাগবেই।যেমন কেউ হয়ত এমএস অফিসের কাজ শিখতে চাচ্ছে তাদের জন এটা উপযুক্ত হতে পারে।তবে আমার পার্সোনাল মতামত হল আপনার বাজেট যদি লো হয়ে থাকে তাহলে আপনার উচিত হবে সেকেন্ড হ্যান্ড ল্যাপটপ কিনে নেওয়া।

মিড বাজেটের ল্যাপটপ গুলোর দাম মূলত শুরু হয় ৩৫-৪০ হাজার থেকে।তবে এই বাজেটের ল্যাপটপ গুলো আবার তিন ভাগে ভাগ করা যায়।কারন দাম একটু কম বেশী করলে এক জেনারেসন সামনে অথবা পিছনের প্রসেসর এর ল্যাপটপ আপনি পাবেন।যারা হালকা ফটো এডিট,ভিডিও এডিট,ইন্টারনেট ব্রাউজ সাথে মাল্টিটাস্ক করতে চান তাদের জন্য এই বাজেটের ল্যাপটপ উপুজুক্ত।আপনি যদি ফ্রী লান্সার হিসাবে কাজ শুরু করতে চান অথবা ফটো বা ভিডিও এডিটে নিজেকে এক্সপার্ট করে তুলতে চান তাহলে আপনার উচিত হবে মিড বাজেটের ডেক্সটপ কম্পিউটার কেনা।আপনি যখন এসব কাজে দক্ষ হয়ে উঠবেন তখন আপনার ল্যাপটপ কিনে নিলেও চলবে।

এবার আলোচনা করা যাক হাই বাজেট ল্যাপটপ সম্পর্কে।আপনার বাজেট যদি ৭০ হাজার+ হয়ে থাকে তাহলে আপনার উচিত হবে এই আর্টিকেল এর এই অংশ পড়া।আচ্ছা হাই বলতে আপনি কি বুঝেন?আশা করি আপনি বুঝেন যে হাই শব্দ এর অর্থ কি।এই ধরনের ল্যাপটপ দিয়ে মূলত সব কিছুই করা সম্ভব।আপনি যদি একজন প্রফেশনাল মানের কম্পিউটার বেবহারকারি হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য হাই বাজেট ল্যাপটপ উপযুক্ত।আর আপনার বাজেট হাই হলে আপনি সব কিছু ই  আপগ্রেট ভার্সনই পাবেন।

Leave a Comment