প্রিন্টার কিনবেন বলে ভাবছেন?প্রিন্টার কেনার আগে অবশ্যই এই বিষয়গুলো দেখে নিবেন

কম্পিউটার থেকে যে কোন কিছু কাগজে অউটপুট হিসাবে নেওয়ার জন্য প্রিন্টার এর প্রয়োজন পরে।সাধারণত প্রিন্টার কম্পোজ এর দোকান অথবা অফিসে বেশী ব্যাবহার করা হয়।কিন্তু বর্তমান সময়ে আমাদের বাসা বাড়িতেও প্রিন্টার এর প্রয়োজন পরে।কারন অনেকেই অফিসের কাজ বাসাতেও করে অনেক সময়।আর সেই কাজের সময় প্রয়োজন পরে প্রিন্টার এর।আর আপনার ও যদি নিজের কাজের প্রয়োজনে প্রিন্টার কেনার প্রয়োজন পরে,তাহলে অবশ্যই প্রিন্টার কেনার পূর্বে নিচের আলোচিত বিষয় গুলো মাথায় রাখবেন।তবেই একটি ভালো মানের প্রিন্টার কিনতে পারবেন এবং অহেতুক কোন ঝামেলায় পড়তে হবে না।

আমরা কম্পিউটার কেনার সময় যেমন চিন্তা ভাবনা করে কিনি যে,কোন কম্পিউটার আমাদের কাজ করার জন্য সব চাইতে ভালো হবে।ঠিক তেমনি প্রিন্টার কেনার সময়ও কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে যে, কোন প্রিন্টার আমাদেরকে সবচাইতে ভালো প্রিন্ট কপি আউটপুট দিবে।আজের আর্টিকেল কে আমরা প্রিন্টার কেনার পূর্ববর্তী গাইডলাইন হিসাবে ধরে নিতে পারি।

আপনি যেকোনো জিনিস কেনার আগে অবশ্যই ঠিক করে নেন কেন আপনি সেই জিনিস টি কিনবেন?কি কি কাজ করবেন সেই জিনিস দিয়ে।ঠিক তেমনি প্রিন্টার কেনার আগে আপনার ভেবে নেওয়া উচিত যে,কেন আপনার একটি প্রিন্টার প্রয়োজন?প্রিন্টার কেনার পর সেই প্রিন্টার দিয়ে আপনি কি কি প্রিন্ট করবেন।

আপনি যদি একান্তই নিজের পার্সোনাল কাজের জন্য প্রিন্টার কিনেন তাহলে আপনার খুব বেশী হাই ফাংশন প্রিন্টার কেনার প্রয়োজন নেই।যেমনঃ আপনি যদি আপনার গুরুত্বপূর্ণ কাগজ প্রিন্ট, পড়া লেখার ক্ষেত্রে হোম ওয়ার্ক, নোট, শিট কিংবা অ্যাসাইনমেন্ট প্রিন্ট করার জন্য প্রিন্টার এর প্রয়োজন বোধ করেন তাহলে একটি কম ফাংশন এর প্রিন্টারই আপনার জন্যউপযুক্ত।আমরা অনেকেই এই ব্যাপার না বুঝতে পেরে অনেক সময় হাই ফাংশনাল প্রিন্টার কিনে ফেলি,যা আদতেও আমাদের প্রয়োজন নেই এবং এর ফলে আমাদের অর্থের ও অপচয় হয়।

আপনি যদি অফিসিয়াল কাজের জন্য প্রিন্টার কিনতে চান তাহলে আপনাকে অনেক বিষয় মাথায় রাখতে হবে।যেমনঃ যে প্রিন্টার কিনবেন এটা যেন অনেক দীর্ঘ সময় চালু রাখার পরেও একই পারফরমান্স দিতে পারে,কম সময়ে যেন অনেক বেশী কপি প্রিন্ট আউট করতে পারে,অনেক সময় অফিসিয়াল ডকুমেনট স্ক্যান করার প্রয়োজন পরে,সুতরাং আপনার কেনা প্রিন্টার যেন একই সাথে স্কানার হিসাবে ব্যাবহার করা যায়।কিছু কিছু প্রিন্টারে এখন আবার ইন্টারনেট সংযোগ করে ইমেইল অথবা ফাক্সও করা যায়।সুতরাং আপনি যখন অফিসিয়াল কাজের জন্য প্রিন্টার কিনতে চাইবেন এই সুবিধা গুলো সেই প্রিন্টার আপনাকে দিচ্ছে কি না তা যাচাই করে নিতে হবে।

আবার আপনি যদি প্রফেশনাল কাজের জন্য প্রিন্টার কিনতে চান তাহলে আপনাকে অনেক দামী প্রিন্টার কিনতে হবে।যেমনঃ আপনি যদি প্রিন্টিং, গ্রাফিক্স, ফটোগ্রাফি অথবা হাই রেজুলেশন এর কোন ডিজাইন প্রিন্ট আউট করতে চান তাহলে আপনার জন্য সর্বচ্চ দামী প্রিন্টার উপযোগী।

আমরা যখন কোন মোবাইল অথবা কম্পিউটার অথবা অন্য কোন জিনিস কিনতে যাই তখন আমরা এই বিষয়ে একটু ইন্টারনেট অথবা কারও কাছে জেনে শুনে তার পর কিনতে যাই।এই একই ব্যাপার আপনি যখন প্রিন্টার কিনতে যাবেন আপনাকে মাথায় রাখতে হবে।তাহলেই আপনি আপনার সাধ্যর মধ্য সঠিক প্রিন্টারটি কিনতে পারবেন।

উপরে প্রিন্টার এর কাজের ধরন নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।এখন আপনি যে কাজের জন্য প্রিন্টার কিনবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সেই অনুযায়ী বাজেট নিয়ে আপনাকে প্রিন্টার এর দোকানে যেতে হবে।আপনি যে প্রিন্টার কিনবেন ( যদি কোন নির্দিষ্ট কোম্পানির নির্দিষ্ট মডেল এর প্রিন্টার কিনবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন) তাহলে সেই প্রিন্টার এর প্রিন্টিং আউটপুট কেমন তা ইন্টারনেটে একটু সার্চ করলেই জানতে পারবেন এছারা যারা বর্তমানে সেই প্রিন্টার ব্যাবহার করছে তাদের কাছে রিভিউ চাইতে পারেন।কারন ইন্টারনেটে অনেক সময় ভুল তথ্য থাকে কিন্তু যারা ব্যাবহার করছে তাঁরা আপনাকে কখনও ভুল তথ্য দিবে না।

এরপর যে বিষয়ে জানতে হবে তা  হল আপনি যে প্রিন্টারটি কিনবেন সেই প্রিন্টার এর প্রিন্ট করার গতি কেমন।আপনি যদি আপনার বাসার কাজের জন্য কিনতে চান তাহলে গতি ততটা না দেখলেও চলবে।কারন আপনি কয়টা পেজই আর প্রিন্ট করবেন কিন্তু আপনি যদি অফিসিয়াল কাজের জন্য কিনতে চান তাহলে অবশ্যই গতির ব্যাপার টা মাথায় রাখতে হবে।

বাসায় ব্যাবহার করলে হয়ত একটা একটা করে পেজ প্রিন্টারে প্রবেশ করানো সম্ভব।কিন্তু আপনি যদি অফিসিয়াল কাজের জন্য ব্যাবহার করতে চান,তাওলে আপনাকে এক সাথে অনেক গুলো পেজ প্রিন্ট করতে হতে পারে।সেইক্ষেত্রে একটা একটা করে পেজ প্রবেশ করানো অনেক সময়ের ব্যাপার আর বিরক্তিকরও।সুতরাং আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে আপনার কিনতে চাওয়া প্রিন্টারটি একসাথে কতগুলো পেজ লোড করার ক্ষমতা রাখে।এছারা আপনার কিনতে চাওয়া প্রিন্টার এর কানেক্টিভটি ক্ষমতা কতদূর পর্যন্ত এটাও লক্ষ্য রাখতে হবে।

এখন অবশ্যই আপনি চিন্তা করছেন কোন ধরনের প্রিন্টার কিনবেন?ইঙ্কজেট নাকি লেজার প্রিন্টার?আমি এই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে দিচ্ছি লেজার প্রিন্টার এর চাইতে ইঙ্কজেট প্রিন্টার দামী।ইঙ্কজেট প্রিন্টার ইমেজ প্রিন্ট করার জন্য সব চাইতে ভালো।অপরদিকে লেজার প্রিন্টার দামেও অনেক সস্তা এবং অনেক উচ্চ গতি সম্পন্ন।পার্সোনাল কাজের জন্য এই প্রিন্ট অনেক উপযুক্ত।এখন আপনি যে প্রিন্টার কিনবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়ছেন সেই প্রিন্টার ক্রয় পরবর্তী কত দিন বিক্রয় সেবা প্রদান করবে এটা জেনে নিতে হবে।বিক্রয় সেবা দিলেও সেই ক্ষেত্রে সার্ভিস চার্জ প্রযোজ্য কি না এটাও জেনে নিতে হবে।

You might also like
Leave A Reply

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy